।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

অ্যালার্জির সমস্যা রয়েছে এমন ব্যক্তিদের ফাইজার-বায়োএনটেকের করোনা ভ্যাকসিন গ্রহণ থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দিয়েছে ব্রিটেন। দুই স্বাস্থ্যকর্মীর শরীরে অ্যালার্জির পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়ার পর, এ সতর্কতা জারি করা হয়।

যুক্তরাষ্ট্রেও ফাইজারের ভ্যাকসিনের চূড়ান্ত অনুমোদনের আগে, বিষয়টি নিয়ে সতর্ক করেছেন, শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ড. অ্যান্থনি ফাউচি। এদিকে, অনুমোদিত করোনা ভ্যাকসিন গ্রহণকারী বিশ্বের প্রথম ব্যক্তি মার্গারেট কেনান’কে বাড়ি ফেরার অনুমতি দিয়েছে হাসপাতাল। সংক্রমণমুক্ত থাকবেন এমন বিশ্বাসে স্বজনদের সান্নিধ্যে নিশ্চিন্ত সময় কাটছে এ প্রবীণের।

ব্রিটেনজুড়েই গতি পেয়েছে টিকাদান কর্মসূচি। অগ্রাধিকার তালিকায় আছেন, স্বাস্থ্যকর্মীরা। যাদেরমধ্যে, দু’জনের শরীরে পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়া হিসেবে দেখা গেছে অ্যালার্জির সমস্যা। বিষয়টি নিয়ে, তাই, সতর্কতা জারি করেছে ব্রিটেনের জাতীয় স্বাস্থ্য বিভাগ-এনএইচএস। জানিয়েছে, অ্যানাফাইল্যাক্সিস রয়েছে এমন ব্যক্তিরা পাবেন না ফাইজারের টিকা।

এমএইচআর’র মুখ্য ব্যবস্থাপক জুন রাইনে বলেন, কারো ওষুধ বা খাবারে গুরুতর অ্যালার্জি থাকলে; তারা ফাইজার-বায়োএনটেকের ভ্যাকসিন গ্রহণ থেকে বিরত থাকুন। যাদের পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে; দ্বিতীয় ডোজও দেয়া হবে না তাদের। তবে, টিকাগ্রহণকারী বেশিরভাগ মানুষ ঝুঁকির বাইরে। কারণ, বিভিন্ন দফায় চালানো পরীক্ষায় নিরাপত্তা এবং কার্যকারিতার ধাপগুলো উৎরে গেছে টিকাটি।

যুক্তরাষ্ট্রেও ফাইজারের ভ্যাকসিন অনুমোদনের চূড়ান্ত ধাপে আছে। সংক্রমণ ও মৃত্যু বাড়ায়, আগেভাগে শুরু হয়ে গেছে টিকা দেয়ার প্রস্তুতিও। হাসপাতাল ও স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রগুলোয় চলছে টিকা প্রয়োগের প্রশিক্ষণ। মার্কিন শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ, অপ্রত্যাশিত পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে প্রস্তুত থাকার।

মার্কিন জাতীয় রোগতত্ব বিভাগের পরিচালক ড. অ্যান্থোনি ফাউচি বলেন, যখন পরীক্ষা চলে, তখন কয়েক হাজার মানুষের ওপর প্রতিক্রিয়া দেখা হয়। কিন্তু গণহারে প্রয়োগ মানে, লাখ লাখ মানুষের ব্যাপার। যেখানে দু-একজনের, একেবারে ব্যতিক্রম কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া অস্বাভাবিক নয়। টিকা নেয়ার পর যাদের অ্যালার্জি বেড়েছে, তাদের আগেই এ প্রবণতা ছিলো। তাই, অ্যালার্জি থাকলে কিছুটা সমস্যার জন্য আগেই মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকতে হবে।

নিউইয়র্কে এ সপ্তাহেই পৌনে দুই লাখ ডোজ টিকা পৌছাবে। জরিপ বলছে, ৫০ ভাগ মার্কিনী প্রথম ধাপেই টিকা নিতে চান।