।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

অবশেষে নতুন চেয়ারম্যান নির্বাচিত করেছে আইসিসি। শশাঙ্ক মনোহরের পর ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থার দ্বিতীয় স্বাধীন চেয়ারম্যান হয়েছেন গ্রেগ বার্কলে।

পেশায় আইনজীবী বার্কলে ২০১২ সাল থেকেই নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালকের দায়িত্বে ছিলেন। একই সঙ্গে আইসিসিতে তাদের প্রতিনিধি ছিলেন। এছাড়া ২০১৫ বিশ্বকাপের পরিচালকের ভূমিকাতেও দেখা গেছে তাকে। নতুন ভূমিকার কারণে এখন কিউই বোর্ডের পদ ছাড়বেন। আর স্থলাভিষিক্ত হবেন অন্তর্র্বতী চেয়ারম্যান ইমরান খাজার।

বার্কলে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন দ্বিতীয় রাউন্ডের ভোটাভুটির পর। গত সপ্তাহে প্রথম রাউন্ডে ইমরান খাজার সঙ্গে ভোটাভুটিতে বার্কলে এগিয়ে ছিলেন ১০-৬ ব্যবধানে। কিন্তু চেয়ারম্যান হতে গেলে ১৬ সদস্যের বোর্ড থেকে ভোটের প্রয়োজন ছিল ১১টি (দুই তৃতীয়াংশ)। এই রাউন্ডে দক্ষিণ আফ্রিকার কাছ থেকে ১১তম ভোট প্রাপ্তির পরই নিশ্চিত হয় তার বিজয়।

জয়ের পর উচ্ছ্বসিত বার্কলে বলেছেন, ‘আইসিসির চেয়ারম্যান হতে পেরে আমি সত্যিই গর্বিত। আমার আইসিসির সহকর্মী, পরিচালকদের সহযোগিতা জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই। আশা করছি, আমরা এক সঙ্গে খেলাটাকে আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবো এবং মহামারি পরিস্থিতি কাটিয়ে আরও শক্ত অবস্থানে যেতে পারবো।’ মূলত বার্কলে ও খাজার লক্ষ্যের পার্থক্যই ভোটাভুটিতে প্রভাব রেখেছে। বার্কলে সার্বিকভাবে দ্বিপক্ষীয় সিরিজকে প্রাধান্য দেওয়ার পক্ষে। একই পথে তার অনুসারীরা হলো ভারত, অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকা। যারা পরবর্তী চক্রে বাড়তি আইসিসি ইভেন্টের বিপক্ষে। সেই লক্ষ্যে তাদের প্রতিনিধিরা মুম্বাইয়ে সভাও করেছেন। অপর দিকে খাজা আইসিসির ইভেন্টকেই প্রাধান্য দেওয়ার পক্ষপাতী ছিলেন।