।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

লালমনিরহাট উপজেলার বুড়িমারী ইউনিয়নের বুড়িমারী কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে কোরআন শরীফ অবমাননার গুজব ছড়িয়ে আবু ইউনুস মো. শহিদুন্নবী জুয়েল নামে এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যার পর লাশ পুড়িয়ে ছাই করার ঘটনায় ওই মসজিদের মুয়াজ্জিন মো. আফাজ উদ্দিন (৬০)-কে গ্রেফতার করেছে পাটগ্রাম থানা পুলিশ ও লালমনিরহাট জেলা ডিবি পুলিশের একটি যৌথ টিম।

লালমনিরহাট জেলা ডিবি পুলিশের ওসি ওমর ফারুক ও পাটগ্রাম থানার ওসি সুমন কুমার মোহন্ত এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

লালমনিরহাট ডিবি পুলিশের ওসি মো. ওমর ফারুক বলেন, ১২তম ধাপে গ্রেফতার মুয়াজ্জিন আফাজ উদ্দিন (৬০)-কে হত্যা মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে লালমনিরহাট সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের আমলি আদালত-৩ এ সোপর্দ করার জন্য লালমনিরহাটে পাঠানো হয়েছে। তাকে বিকালে আদালতে সোপর্দ করা হবে।

উল্লেখ্য, গত ২৯ অক্টোবর লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী ইউনিয়ন পরিষদের ভেতরে আবু ইউনুস মো. শহিদুন্নবী জুয়েলকে হত্যার পর লাশ টেনে হেঁচড়ে লালমনিরহাট-বুড়িমারী জাতীয় মহাসড়কের বুড়িমারী ইউনিয়ন পরিষদের বাঁশকল মেসার্স জয় ট্রেডার্সের সামনে মহাসড়কের ওপর পেট্রোল, কাঠখড়ি ও টায়ার দিয়ে পুড়িয়ে ছাই করা হয়। এই ঘটনায় দায়ের হওয়া তিনটি মামলায় এজাহার নামীয় ১১৪ জন আসামি ও অজ্ঞাত শত শত আসামির মধ্যে এখন পর্যন্ত ১২তম দফায় এজাহার নামীয় ৩৩ জন আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এরমধ্যে জুয়েলকে মসজিদের ভেতরে প্রথম মারধরকারী ও হত্যা মামলার এক নম্বর আসামি আবুল হোসেন ওরফে হোসেন আলী এবং ওই মসজিদের খাদেম জোবায়েদ আলী ওরফে জুবেদ আলী রয়েছে।

Berger Weather Coat