নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী ॥

রাজশাহীতে যমুনা ব্যাংকের এক কোটি ২৬ লাখ টাকা আত্মসাতের মামলায় ব্যাংকটির সাবেক দুই ব্যাংকারের বিরুদ্ধে ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা এই মামলার রায়ে বিভাগীয় স্পেশাল জজ আদালত আসামীদের প্রত্যেককে ৭০ লাখ টাকা করে অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও এক বছরের কারাদণ্ডের আদেশ দেন।

দুদকের পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট শহিদুল ইসলাম খোকন জানান, ২০১৩ সালের ৩০ জুলাই দায়ের করা এই মামলায় সাজাপ্রাপ্ত দুই সাবেক ব্যাংকার ছাড়াও ব্যবসায়ী খন্দকার মাইনুল ইসলামকে আসামী করা হয়েছিলো। কিন্তু দুদকের তদন্তকালে তিনি মারা যাওয়ার কারণে ২০১৭ সালের ১১ এপ্রিল শুধুমাত্র দুই ব্যাংকারের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করা হয়। বিচার শেষে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় সাজার রায় দেন আদালত। সাজাপ্রাপ্ত চাকরিচ্যুত শাখা ব্যবস্থাপক আবরার হোসেন খান ও সিনিয়র অফিসার মাজহারুল ইসলাম এখনও পলাতক রয়েছেন।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ব্যাংকটির রাজশাহী শাখার প্রাক্তন সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট ও ব্যবস্থাপক আবরার হোসেন খান এবং সিনিয়র এক্সিকিউটিভ অফিসার (ক্রেডিট ম্যানেজমেন্ট) মাজহারুল ইসলাম ব্যবসায়ী খন্দকার মাইনুল ইসলামের নামে ঋণ সংস্থান করতে তার সঙ্গে মিলে জাল কাগজপত্র তৈরি করেন। এরপর সেই কাজপত্রের বিপরীতে ১ কোটি ২৬ লাখ টাকা ঋণ নিয়ে তা আত্মসাৎ করেন তারা।

এ ঘটনা প্রকাশ্যে এলে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ তাদের চাকরিচ্যুত করে। ২০১৩ সালে মামলা করা হয় বোয়ালিয়া থানায়। দুই ব্যাংকার চম্পট দেন। ২০১৬ সালে নিজ বাড়িতে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হন ব্যবসায়ী মাইনুল। দুদকের তৎকালীন সহকারী পরিচালক আমিনুর রহমান তদন্ত শেষে ২০১৭ সালে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। এতে মৃত ব্যবসায়ীকে অব্যাহতি দিয়ে দুই সাবেক ব্যাংকারকে অভিযুক্ত করা হয়।

Berger Weather Coat