।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আগামী বছরের মার্চে ঢাকায় আসছেন । ঐ সফরের আগে আগামী ডিসেম্বরে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মধ্যে একটি ভার্চুয়াল বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। এমনটি জানিয়েছেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়, ঢাকার রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় গত রোববার বাংলাদেশে নবনিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামীর সঙ্গে বৈঠক করেন ড. এ কে আবদুল মোমেন।

ঐ বৈঠকে পর বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নীতিগতভাবে আমন্ত্রণ গ্রহণ করেছেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনে যোগ দিতে এ বছর ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সফর করার কথা ছিল। কিন্তু কোভিড-১৯ মহামারির কারণে এই সফর বাতিল করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেছেন, বাংলাদেশ ও ভারত আগামী বছর একসাথে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর উৎসব উদযাপন করবে। মোমেন বলেন, বাংলাদেশের জয় ভারতের জয়। আমাদের একসাথে উদযাপন করা উচিত।ডিসেম্বরে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মধ্যে একটি ভার্চুয়াল বৈঠক হবে জানিয়ে তিনি বলেন, তারিখ এখনো নির্ধারণ করা হয়নি, সম্ভবত ১৬ অথবা ১৭ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে।

একটি সূত্র জানিয়েছে, বৈঠকে ভারতের পক্ষ থেকে এই বৈঠক ১৬ ডিসেম্বর বৈঠকের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। তবে সেদিন বাংলাদেশে বিজয় দিবস হওয়ায় এই বৈঠক ১৬ ডিসেম্বরের পরে হতে পারে বলে জানা গেছে। এই বৈঠক নিয়ে ভারতের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে এখনো কিছু বলা হয়নি।

করোনা ভাইরাসের বৈশ্বিক মহামারির আগে ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসে ব্রিকস সম্মেলনে যোগ দিতে ব্রাজিল সফর করেন নরেন্দ্র মোদি। এখন পর্যন্ত এটি ছিল মোদির সর্বশেষ বিদেশ সফর।

Berger Weather Coat