।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন, দায়িত্বরত কর্মকর্তাকে গালি ও হুমকি দেওয়ার অভিযোগে নির্বাচন কমিশনের মামলায় আগাম জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেছেন ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য মুজিবর রহমান চৌধুরী নিক্সন।

হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় রোববার আবেদনটি জমা দেওয়া হয়েছে বলে তার আইনজীবী এম মঞ্জুর আলম জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, “আইনজীবী শাহদিন মালিক আমাদের আবেদনটি জমা দিয়েছেন। বিচারপতি শেখ মো. জাকির হোসেন ও বিচারপতি কে এম জাহিদ সারোয়ারের বেঞ্চে আবেদনটির শুনানি হতে পারে।”

কী যুক্তিতে আগাম জামিন চাওয়া হয়েছে জানতে চাইলে মঞ্জুর আলম বলেন, “আবেদনটি এখন সাবজুডিস (বিচারাধীন বিষয়) মেটার, তাই সেটি এখন বলতে চাচ্ছি না।”

ফরিদপুরের জ্যেষ্ঠ নির্বাচন কর্মকর্তা নওয়াবুল ইসলাম গত বৃহস্পতিবার সকালে চরভদ্রাসন থানায় সাংসদ নিক্সন চৌধুরীর বিরুদ্ধে এ মামলা করেন।

এজাহারে বলা হয়, গত ১০ অক্টোবর চরভদ্রাসন উপজেলার উপ নির্বাচনে কেন্দ্রভিত্তিক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিযুক্ত করায় জেলা প্রশাসক অতুল সরকারকে ফোন করে কৈফিয়ত দাবি করেন সাংসদ নিক্সন। তার সমর্থিত প্রার্থী পরাজিত হলে মহাসড়ক অবরোধ করার ‘হুমকি’ দেন এবং ‘অশোভন আচরণ’ করেন।

একইসাথে নির্বাচনের দিন একটি ভোট কেন্দ্রের বুথের সামনে জাল ভোট দেওয়া ও ধূমপান করার সময় একজন পোলিং এজেন্টকে আটকের পর চরভদ্রাসনের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, ভাঙ্গার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও কর্তব্যরত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে সাংসদ ‘অত্যন্ত অশালীন ভাষায় গালিগালাজ, ভয়ভীতি প্রদর্শন এবং হুমকি’ দেন বলে অভিযোগ করা হয়েছে মামলায়।

একজন সংসদ সদস্য হয়েও নির্বাচনী এলাকায় উপস্থিত থেকে নির্বাচনের প্রচারে অংশগ্রহণ করে এবং দায়িত্বরত কর্মকর্তাদের ‘গালিগালাজ ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করে’ নিক্সন চৌধুরী নির্বাচনী বিধিমালা লঙ্ঘন করেছেন বলে এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে।

গত ১০ অক্টোবর সেই ভোটের পর সন্ধ্যায় উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সামনে এক সমাবেশে স্বতন্ত্র সাংসদ নিক্সন চৌধুরী বলেন, “প্রশাসনের মধ্যে লুকাইয়া থাকা ওই জেলা প্রশাসক এ নির্বাচনে ১২ জন ম্যাজিস্ট্রেট দিয়ে নৌকার কর্মীদের অ্যারেস্ট করছে, পিটাইছে ওই জেলা প্রশাসক।”

ভোটের দিন সকালেও সাংসদ নিক্সন চরভদ্রাসনের ইউএনওকে ফোন করে হুমকি-ধমকি দেন এবং অপর একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে গালিগালাজ করে দেখে নেওয়ার হুমকি দেন বলে অভিযোগ ওঠে। তার ওই টেলিফোন আলাপের অডিও ফেইসবুকে ছড়িয়ে পড়লে শুরু হয় তুমুল সমালোচনা।

অবশ্য সাংসদ মুজিবর রহমান চৌধুরী নিক্সন ঢাকায় জাতীয় প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছেন। তার দাবি, হুমকি দেওয়ার যে অডিও ফেইসবুকে ভাইরাল হয়েছে, তা ‘সুপার এডিটেড’।

এদিকে নিক্সনের পক্ষে-বিপক্ষে সমাবেশ ডাকায় শনিবার সকাল ৯টা থেকে রোববার সকাল ৯টা পর্যন্ত সদরপুর উপজেলা সদরের এক কিলোমিটার এলাকা জুড়ে ১৪৪ ধারা জারি করে স্থানীয় প্রশাসন। সাংসদ নিক্সনের সমর্থকরা ১৪৪ ধারা ভাঙার চেষ্টা করলে উত্তেজনা তৈরি হয়।

দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচির কারণে রোববারও সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত ভাঙ্গা উপজেলার হাসপাতাল মোড় ও আশপাশের এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি রয়েছে বলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রকিবুর রহমান খাঁন জানিয়েছেন।

তিনি জানান, নিক্সন চৌধুরীর সমর্থকরা হাসপাতাল মোড় এলাকায় কর্মসূচি দেওয়ার পর একই এলাকায় কর্মসূচি ঘোষণা করে মুক্তিযোদ্ধা মঞ্চ নামে আরেকটি সংগঠন।

“পরিস্থিতির অবনতির আশঙ্কায় সেখানে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। এ সময় সেখানে সব ধরনের মিছিল-সমাবেশ-জমায়েত নিষিদ্ধ থাকবে।”

Berger Weather Coat

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.