পড়তে পারবেন < 1 মিনিটে

।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

কোনও তথ্য শেয়ার না করেই হঠাৎ অনুমোদন দিয়ে বিশ্বব্যাপী হইচই ফেলে দেওয়া সেই ভ্যাকসিনের তথ্য এবার ভারত দিল রাশিয়া। স্পুটনিক-ভি নামের ওই ভ্যাকসিনের তথ্য ব্রিটিশ পাবলিকেশন ‘ল্যানসেট’কে দেওয়ার পর ভারতকে দিল পুতিনের দেশ। খবর ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের।

ভারতের স্বাস্থ্য বিভাগের একজন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করে সংবাদমাধ্যমটিকে বলেন, স্পুটনিক ভি টিকার বিষয়ে আমরা এখন রাশিয়ার সঙ্গে গভীর যোগাযোগ রাখছি। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বায়োটেকনোলজি বিভাগের সেক্রেটারি রেনু স্বরূপ এবং রাশিয়ায় নিযুক্ত ভারতের রাষ্ট্রদূত ডি বি ভেঙ্কটেশ ভার্মা পুরো বিষয়টি সমন্বয় করেছেন।

রাশিয়ার ভ্যাকসিনের এই ডেটা পর্যালোচনা করবেন ভারতের বিশেষজ্ঞরা। নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষের থেকে ছাড়পত্র পেলে বিকল্প হিসেবে দেশটিতে পৃথকভাবে এর তৃতীয় পর্যায়ের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল করা হতে পারে।

স্পুটনিক-ভি এর সরকারি ওয়েবসাইট অনুসারে, রাশিয়া একাধিক দেশে এই ভ্যাকসিনের তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালের পরিকল্পনা করেছে। এইসব দেশের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, ব্রাজিল ও ফিলিপাইন।

পৃথিবীর প্রথম দেশ হিসেবে করোনাভ্যাকসিনের অনুমোদনের ঘোষণা দিয়ে সেটি জাতীয়ভাবে ব্যবহারের একদম চূড়ান্ত পর্যায়ে চলে এসেছে রাশিয়া। রাজধানী মস্কোর তিনটি ক্লিনিকের বহির্বিভাগ রোগীদের জন্য ‘স্পুটনিক-ভি’ ভ্যাকসিনের প্রথম চালান পাঠানো হয়েছে।

রাশিয়ার ‘স্পুটনিক-ভি’ টিকার ডেভেলপার প্রধান জানিয়েছেন, করোনাভাইরাসের যেকোনও মাত্রার সংক্রমণের বিরুদ্ধে কাজ করবে তাদের ভ্যাকসিন। মস্কোর গামেলিয়া রিসার্চ সেন্টারের প্রধান আলেকজান্ডার গিন্সবুর্গ এমন কথা বলার আগে ল্যানসেট জার্নাল জানায়, টিকাটি প্রাথমিক ট্রায়ালে অংশ নেওয়া সবার শরীরে নিরাপদ ও কার্যকরী অ্যান্টিবডি তৈরি করেছে।

Berger Weather Coat