।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

বিজ্ঞানীদের কাছ থেকে সবুজ সংকেত পেলে বিপুল পরিমাণে কোভিড-১৯ টিকা উৎপাদনে ভারত প্রস্তুত আছে বলে দাবি করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। স্বাধীনতা দিবসের ভাষণে শনিবার মোদী টিকা উৎপাদনের পাশপাশি যত দ্রুত সম্ভব তা দেশের প্রতিটি নাগরিকের কাছে পৌঁছে দিতে প্রস্তুত আছেন বলেও জানান। দিল্লির রেড ফোর্টে স্বাধীনতা দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে মোদী বলেন, একটি বা দুটি নয়, ‍কোভিড-১৯ এর অন্তত তিনটি টিকা ভারতে পরীক্ষা করা হচ্ছে।

শুধু টিকা উৎপাদনই নয়, বরং কীভাবে দ্রুততার সঙ্গে তা দেশের প্রতিটি মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়া যায় তার পরিকল্পনাও করা হয়ে গেছে।

এদিন মোদী কমলা ও সাদা রঙের পাগড়ি পরে অনুষ্ঠানে আসেন। একই রঙের স্কার্ফ গলায় পেঁচানো ছিল। অনুষ্ঠানের সময় কেউ কাছে এসে গেলে ওই স্কার্ফ দিয়ে তিনি নাক-মুখ ঢাকেন।করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে এবার ভারতের স্বাধীনতা দিবসের আয়োজন তেমন ঝাঁকজমক পূর্ণ ছিল না। কুচকাওয়াজে অংশ নেওয়া সেনাদের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হয়েছে। অনুষ্ঠানে মাত্র চার হাজার ‍অতিথি আমন্ত্রিত ছিলেন। প্রতিটি চেয়ার ছয় ফুট দূরে দূরে ছিল।

মোদী এদিন ১৩০ কোটি রুপির স্বাস্থ্য প্রকল্প ন্যাশনাল ডিজিটাল হেল্থ মিশন উদ্বোধন করেন। করোনাভাইরাস মহামারী আটকাতে বিশ্বের অনেক দেশ ও ইন্সটিটিউট টিকা আবিষ্কারের চেষ্টা করছে। তারা টিকা পরীক্ষার নানা ধাপে রয়েছে।

এদিকে, বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে গত সপ্তাহে রাশিয়া কোভিড-১৯ এর একটি টিকা ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে। মস্কোর গামালিয়া ইনস্টিটিউটের বানানো ওই টিকা মানব দেহে পরীক্ষামূলক ব্যবহারের পর দুই মাসও পেরোয়নি। তৃতীয় বা চূড়ান্ত ধাপের পরীক্ষাও হয়নি। তার আগেই সেটিকে গণহারে ব্যবহারের অনুমোদন দেওয়া নিয়ে বিশ্বজুড়ে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

তবে রাশিয়ার দাবি তাদের টিকা অত্যন্ত কার্যকর এবং নিরাপদ। ২০টির মতো দেশ এরইমধ্যে রাশিয়ার টিকা নিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে বলেও জানিয়েছে মস্কো। সেই দেশগুলোর একটি ভিয়েতনাম। প্রাদুর্ভাবের শুরুতে অত্যন্ত দক্ষতার সঙ্গে করোনাভাইরাস মহামারীর সংক্রমণ আটকে দেওয়া ভিয়েতনামে নতুন করে ভাইরাসের বিস্তার দেখা দিয়েছে। যে কারণে দেশটির কমিউনিস্ট সরকার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে রাশিয়ার টিকা কিনতে নাম নিবন্ধনের কথা জানিয়েছে।

Berger Weather Coat