পড়তে পারবেন < 1 মিনিটে Berger Weather Coat

 ।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

বিশ্বে ধারাবাহিক বন্যার হটস্পটগুলোর মধ্যে একটি বাংলাদেশ। সবশেষ একটি গবেষণায় বলা হয়েছে, বিশ্বব্যাপী উপকূলে বসবাসকারী বিশ্বের ২৫০ মিলিয়ন মানুষ অদূর ভবিষ্যতে বন্যার মুখোমুখি হবে। গবেষণাতে বিশ্বব্যাপী ধারাবাহিক বন্যার হটস্পট শনাক্ত করা হয়েছে।

গবেষণায় বলা হয়েছে, বন্যার হটস্পটগুলোর মধ্যে রয়েছে দক্ষিণ-পূর্ব চীন, অস্ট্রেলিয়ার উত্তর অঞ্চল, বাংলাদেশ, ভারতের পশ্চিমবঙ্গ ও গুজরাট, যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ক্যারোলিনা, ভার্জিনিয়া এবং মেরিল্যান্ড, উত্তর-পশ্চিম ইউরোপসহ যুক্তরাজ্য, ফ্রান্সের উত্তরাঞ্চল এবং উত্তর জার্মানি।

মেলবোর্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৌশলী ইয়ান ইয়ং বলেন, এটি নীতিগত দৃষ্টিকোণ থেকে করা একটি গবেষণা, কারণ এটি রাজনীতিবিদদের আমরা যে ঝুঁকিগুলো মুখোমুখি হয়েছি তার একটি নির্ভরযোগ্য অনুমান এবং এ বিষযে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য একটি ভিত্তি সরবরাহ করে।

গবেষকরা বলছেন, আগামী ৮০ বছরে বন্যার পরিমাণ প্রায় ৫০ শতাংশ বৃদ্ধি পেতে পারে। এর ফলে লাখ লাখ উপকূলবাসী বিপদের সম্মুখীন হবে। মানুষ যদি বেশি পরিমাণে জীবাশ্ম জ্বালানি জ্বালাতে থাকে এবং প্রাকৃতিক বন ধ্বংস করে তাহলে বিশ্বের আরো কমপক্ষে সাত কোটি ৭০ লাখ মানুষ বন্যার ঝুঁকিতে পড়তে পারে। যা বেড়ে ৫২ শতাংশ হতে পারে।

সায়েন্টিফিক রিপোর্টস জার্নালে প্রকাশিত এক নতুন সমীক্ষায় দেখা গেছে, আগামী দিনগুলোতে বন্যায় যে পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হবে তা বিশ্বের জিডিপির ২০ শতাংশ হতে পারে। ক্লাইমেট নিউজ নেটওয়ার্কে বলা হয়েছে, গবেষকরা ১০ হাজারটি উপকূলীয় অঞ্চলকে ক্রমবর্ধমান বিপজ্জনক মডেল হিসেবে দেখছেন। বিশ্বজুড়ে ৬৮১টি স্টেশনে জোয়ার মাপার যন্ত্রের সাহায্যে তাদের তথ্যগুলো যুক্তি দিয়ে সাজিয়েছেন।

গবেষকরা বলছেন, ১০০ বছরে একবার ভয়াবহ বন্যার যে দৃশ্য আমরা দেখেছি, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে এখনকার তুলনায় তা দশগুণ বেশি ঘন ঘন ঘটবে।