।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

স্বাস্থ্যবিধি না মানলে লকডাউন কিংবা রেড জোন কোনোটাই কাজে দেবে না বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। এজন্য তিনি আসন্ন ঈদে করোনা সংক্রমণ রোধে সকলকে সচেতনতার জনযোদ্ধা হিসেবে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন। বুধবার (৮ জুলাই) সংসদ ভবন এলাকার নিজের সরকারি বাসভবন থেকে নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এ আহ্বান জানান।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ঈদে সংক্রমণ বিস্তার রোধে আমাদের সকলকে সচেতনতার জনযোদ্ধা হিসেবে কাজ করতে হবে। সমাগম এড়িয়ে চলতে হবে নিজের ও পরিবারের স্বার্থে। পশুর হাট, বাস লঞ্চ টার্মিনাল, ট্রেন স্টেশন, ফেরিঘাট, শপিংমল, কাঁচাবাজারসহ প্রতিটি স্থানে পারস্পরিক দূরত্ব বজায় রেখে, মাস্ক পরে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে সুরক্ষা বলয় তৈরি করতে হবে।

তিনি বলেন, পরিবারের সাথে ঈদ করার আনন্দযাত্রা যেন বিষাদ যাত্রায় রূপ না নেয় সে বিষয়ে সচেতন থাকতে হবে। ক্ষণিকের উদাসীনতা জীবনের চিরচেনা কোলাহল থেকে আমাদের নিঃশব্দ অচেনা জগতে নিয়ে যেতে পারে। তাই আসুন, সচেতনতার সর্বোচ্চ মাত্রায় নিজেদের সুরক্ষিত করি। স্বাস্থ্যবিধি না মানলে কোন প্রয়াসই কাজে দিবে না। ফল দিবে না লকডাউন কিংবা রেড জোন। তাই আসুন, মনের মাঝেই দৃঢ়তার দুর্গ নির্মাণ করি করোনার সংক্রমণ প্রতিরোধে।

তিনি আরও বলেন, করোনার নমুনা পরীক্ষা, সনদ, প্লাজমা ডোনেশনসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে এ সংকটকে ঘিরে এক শ্রেণির অসাধুচক্র প্রতারণার আশ্রয় নিচ্ছে এবং মানুষ ঠকাচ্ছে। এসকল প্রতারণা ও অনিয়মের বিরুদ্ধে সরকার কঠোর অবস্থানে রয়েছে। এধরণের প্রতারণা মানুষের অসহায়ত্ব নিয়ে নির্মম বাণিজ্য ছাড়া কিছু নয়। আবার কিছু মানুষ সংক্রমণ লুকিয়ে তথ্য গোপন করে চলাফেরা করছেন, আবার কেউ করোনা নেগেটিভ সনদ নিয়ে বিদেশে গিয়ে বিমানবন্দরে পজিটিভ হিসেবে চিহ্নিত হচ্ছেন।

বিদেশে যাওয়ার তীব্র প্রতিযোগিতা এবং সত্য গোপন রাখায় বিদেশে দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করা হচ্ছে এবং লাখ লাখ প্রবাসীদের অবিশ্বাস আর অনিশ্চয়তার আঁধারে ঠেলে দিচ্ছে। লক্ষণ দেখা দিলে আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নেওয়ার অনুরোধ করছি। তা না হলে, তথ্য গোপনের সাথে সাথে দেশের ভাবমূর্তি, লাখ লাখ প্রবাসীর ভাগ্য এবং ভবিষ্যতও অনিশ্চয়তায় আবর্তিত হবে।

Berger Weather Coat