দেহাসনে অটল বিহার

❑ 

পুষ্প প্রাণ চমকে উঠার মতো
যে আমি ক্ষমার বাহারে প্রফুল্ল
তাকে ধরতে পারি না
সে আমি’র দেহাসন অটল বিহার
বহুমানুষের নতমুখ
সঙ্গে নিয়ে ঘোরে
বহুমানুষের উপেক্ষায় হেসে দিতে পারে
নরম আলোর দেহে
ছড়িয়ে পড়তে পারে যেকোনো সময়
তাকে তোয়াজ করি
খুলে ফেলতে বলি নদীর স্বভাব

ঝুমঝুম বৃষ্টির প্ররোচনা

❑ 

ঝুমঝুম বৃষ্টির প্ররোচনায়
আজ খুলে যাচ্ছে কারো কারো স্মৃতিসিংহদ্বার
কেউ কেউ হয়ত
মুগ্ধ চৈতন্যের নদীপাড়ে
মনভোলা হয়ে ভিজে চলেছে
বৈরাগীর মতো।
আমি পিছন ফিরে দেখছি বাইস্কোপ
ফিরে আসছে
একে একে দূরে সরে যাওয়া মুখশ্রী
একলা ঘরের দেয়ালে
ভেসে উঠছে ধীরে ধীরে বন্ধুদের মুখ
অটল মায়ার যুক্তবেণী।

অল্পকাল কল্পতারায়

❑ 

অল্পকাল কল্পতারায়
তোমাকে পেয়ে দূরে সরে গেছে
মেঘের কালিমাখা মুখের শ্রী
দেখা যাচ্ছে প্রস্থানের পথে ভাঙা সেতুর ওপার
প্রকৃতির নতুন শরীরে
নীরবতার চোয়ালে এক একটা গাছের ছায়া
মানুষের মতো ঘুমিয়ে আছে
নীরবে সেই ঘুমের ভেতর
তৃণভোজী প্রাণের স্পন্দনে
হেসে উঠছে আমাদের বোবাকালা গোধূলি

প্রচ্ছদ ◘ রাজিব রায়

Berger Weather Coat