পড়তে পারবেন < 1 মিনিটে

।। শুভজিৎ রায়, ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস ।।

রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভের আমন্ত্রণে মঙ্গলবার (২৩ জুন) রাশিয়া-ভারত-চীন ত্রিপক্ষীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠক বসবে মস্কোয়। ২৪ জুন দেশটির বিজয় দিবসের কুচকাওয়াজে অংশ নিতে ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংও যাচ্ছেন রাশিয়ায়। নয়াদিল্লি ও বেইজিংয়ের মধ্যকার সাম্প্রতিক উত্তেজনা নিরসনে মস্কোর উদ্যোগ গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে।  

গত কয়েক সপ্তাহ ধরে মস্কো নয়াদিল্লির সাথে বেশ ঘনিষ্ঠ যোগাযোগের মধ্যে আছে। সাম্প্রতিক নৈকট্যের কারণে বেইজিংয়ের ওপর রাশিয়ার প্রভাব রয়েছে। পাশাপাশি মস্কো-নয়াদিল্লির মধ্যে রয়েছে একটি ঐতিহাসিক সুসম্পর্ক।

প্রকৃতপক্ষে, রাশিয়ায় ভারতীয় রাষ্ট্রদূত ডি বালা ভেঙ্কটেশ ভার্মা এবং সেদেশের উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইগর মোরগুলভের মধ্যে ফোনালাপটি ভারত ও চীনা সেনাদের মধ্যে সীমান্ত সংঘর্ষের মাত্র দুদিন পরে হয়েছিল।

এরপর রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সংক্ষিপ্ত বিবৃতিতে বলা হয়, “কর্মকর্তারা হিমালয়ে ভারত-চীন সীমান্তে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণের লাইন নিয়ে উন্নয়নসহ আঞ্চলিক সুরক্ষা নিয়ে আলোচনা করেছেন।”

এর আগে জুনের প্রথম দিকে ভারত-চীনের মধ্যে লেফটেন্যান্ট জেনারেল পর্যায়ের বৈঠকের আগে ভারতের পররাষ্ট্র সচিব হর্ষবর্ধন শ্রিংলা দেশটিতে রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত নিকোলাই কুদাশেভকে এলএসি’র পরিস্থিতি অবগত করেন। সীমান্ত নিয়ে পররাষ্ট্র সচিব এবং একজন বিদেশি রাষ্ট্রদূতের মধ্যে এটি ছিল একমাত্র প্রকাশ্যে বৈঠক।

মস্কো-বেইজিং অক্ষটিও তাত্পর্যপূর্ণ যখন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সাম্প্রতিক মাসগুলিতে চীনের সঙ্গে বিবদমান সম্পর্কের মধ্যে গিয়েছে এবং রাশিয়া এমনকি কোভিডের প্রাদুর্ভাব সম্পর্কে প্রতিক্রিয়ায়ও অনেক বেশি মেপে কথা বলছিলো।

মঙ্গলবার আরআইসির (রাশিয়া-ইন্ডিয়া-চায়না) পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠক, যা মার্চ মাসে নির্ধারিত হয়েছিলো, ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর এবং চিনের স্টেট কাউন্সিলর এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ইয়ের জন্য এই ত্রিপক্ষীয় বিন্যাসে জড়িত হওয়ার প্রথম সুযোগ হবে।

Berger Weather Coat