পড়তে পারবেন < 1 মিনিটে

পথ

শান্ত ছায়ারা এসে ঢেকে দিয়ে যাচ্ছে

দূরের পথরেখা—

আধবোজা কোনো ঝরোকার পাশ দিয়ে যেতে যেতে

ঝরে গেছে যে গান, তার টুকরোটাকরা শুষে নিয়ে

আরও সুগভীর হয়ে উঠছে ওই ঘণ্টাধ্বনি

সুদূর

ওগো সুদূর, কাঁদছে

ভোরহারা তারার ঝাঁপি—

*

আমাদের সমস্ত গান, যেখানে, খণ্ড খণ্ড নীরবতার ভেতর, নিজেকে বেঁধেছে—চলো, সেইখানে, সেই নিঝুম কুহকের কূলে, অজ্ঞান নীহারিকার উড়ে যাওয়ার মতো বিষণ্ণতা গেঁথে তুলি—ভাবি, ওই হরিতকী-শাখা, সেইসব গোধূলির সমীপে বেড়ে ওঠে, যেখানে সুরেরা জেগে উঠে পথ হারিয়ে ফেলেছে—আর সমুদ্র গর্জনরত।

*

পাঁচিলের পুরনো কোনো এক কোণ থেকে ঝিঁঝি ডাকে—তখন, রাত্রির ছোট্ট ডালি ভরে, কুয়াশার অস্পষ্ট কল্লোল। আর লতানো থানকুনির ফাঁক দিয়ে নেমে, প্রায় বিভোল কোনো মল্লার, যেন, আরও একটু গভীর হয়েছে—হয়তো-বা সেগুনের পাপড়ির মতো, মায়ের হাতের পুঁই-মাচা, ঝরঝর শব্দ করে কাঁপছে। অইখানে—নির্ঘুম—ঘুমের দীঘির পারে—

প্রচ্ছদ ◘ রাজিব রায়

Berger Weather Coat