Loading...
উত্তরকাল > বিস্তারিত > শোবিজ > বলিউড অভিনেতা ইরফান খান আর নেই

বলিউড অভিনেতা ইরফান খান আর নেই

পড়তে পারবেন 2 মিনিটে

।। শোবিজ প্রতিবেদন ।।

ভারতীয় অভিনেতা ইরফান খান আর নেই। আজ বুধবার (২৯ এপ্রিল) মুম্বাইয়ের কোকিলাবেন ধিরুবাই আম্বানি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। তার বয়স হয়েছিল ৫৩ বছর।

কোলন সংক্রমণের কারণে হাসপাতালের আইসিইউতে নেয়া হয়েছিল ইরফানকে। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। ইরফানের মুখপাত্র খবরটির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। খবর দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস-এ প্রকাশিত।

২০১৮ সালের মে মাসে নিওরোএন্ডোক্রাইন টিউমারে আক্রান্ত হন ইরফান। উন্নত চিকিৎসার জন্য লন্ডনে অনেকটা সময় ছিলেন তিনি।

এ বছর ‘অ্যাংরেজি মিডিয়াম’ ছবির মাধ্যমে বড় পর্দায় ফিরেছেন ইরফান। তবে এর প্রচারণা করতে পারেননি তিনি। এটি তারই অভিনীত অভাবনীয় ব্যবসাসফল ছবি ‘হিন্দি মিডিয়াম’-এর সিক্যুয়েল। হোমি আদাজানিয়ার পরিচালনায় এতে আরও অভিনয় করেছেন কারিনা কাপুর, রাধিকা মদন ও দীপক দোবরিয়াল।

‘অ্যাংরেজি মিডিয়াম’ মুক্তির পর দর্শকরা ভালোই দেখছিল। কিন্তু কয়েকদিন পরই কোভিড-১৯ রোগের প্রাদুর্ভাবের কারণে সিনেমা হল বন্ধ করে দেয়া হয়। ডিজনি প্লাস হটস্টারে এখন ছবিটি দেখা যাচ্ছে।

অসুস্থতার সঙ্গে লড়াই নিয়ে কিছুদিন আগে আবেগঘন কথা লিখেছিলেন ইরফান, ‘আমার বাজি ছিল অন্যরকম। দ্রুতগতির একটি ট্রেনে ঘুরছিলাম। স্বপ্ন, পরিকল্পনা, আকাঙ্ক্ষা ও লক্ষ্য ছিল। এগুলোকে ঘিরে খুব ব্যস্ত ছিলাম। হঠাৎ কেউ আমার কাঁধে টোকা দিলো এবং আমি পিছু ফিরে তাকালাম। তিনি টিকিট কালেক্টর। আমাকে জানালেন, ‘আপনার গন্তব্য চলে এসেছে। অনুগ্রহ করে নামুন।‘ আমি দ্বিধাগ্রস্ত হয়ে বললাম, ‘না, না। আমার গন্তব্য আসেনি।’ টিকিট কালেক্টর বললেন, ‘না, এটাই। কখনও কখনও এমন হয়।’

এদিকে গত ২৫ এপ্রিল ইরফানের মা সাইদা বেগম রাজস্থানে মারা গেছেন। সারাভারতে আরোপিত অবরোধের (লকডাউন) কারণে তাকে সামনে থেকে শেষবারের মতো দেখা হয়নি তার। ভিডিও কলের মাধ্যমে মাকে শেষ শ্রদ্ধা জানান তিনি। মায়ের যাওয়ার চারদিন পর ছেলেও চলে গেলেন না ফেরার দেশে।
এ বছর ‘অ্যাংরেজি মিডিয়াম’ ছবির মাধ্যমে বড় পর্দায় ফিরেছিলেন ইরফান। তবে এর প্রচারণা করতে পারেননি তিনি। এটি তারই অভিনীত অভাবনীয় ব্যবসাসফল ছবি ‘হিন্দি মিডিয়াম’-এর সিক্যুয়েল।
লকডাউন ঘোষণার আগে মুক্তি পাওয়া ‘অ্যাংরেজি মিডিয়াম’-এ মেয়ের ইচ্ছেপূরণের জন্য সব প্রতিকূলতার বিরুদ্ধে যাওয়া একজন অবুঝ বাবার চরিত্রে ইরফানের অভিনয় প্রশংসিত হয়েছে। লকডাউনের কারণে সিনেমা হলে থেমে যায় ছবিটি। এরপর এটি মুক্তি পায় অনলাইনে। হোমি আদাজানিয়ার পরিচালনায় এতে আরও অভিনয় করেছেন কারিনা কাপুর, রাধিকা মদন ও দীপক দোবরিয়াল।
ইরফানের সেরা কাজের তালিকায় অন্যতম বিশাল ভরদ্বাজের ‘মকবুল’ (২০০৩) ও সুজিত সরকারের ‘পিকু’ (২০১৫)। ২০১২ সালে তিগমাংশু ধুলিয়ার ‘পান সিং তোমর’ ছবিতে দারুণ অভিনয়ের সুবাদে ভারতের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান তিনি।
হলিউডের বেশ কয়েকটি ছবিতে অভিনয় করে আন্তর্জাতিক খ্যাতি পেয়েছেন ইরফান খান। এ তালিকায় উল্লেখযোগ্য— ড্যানি বয়েলের ‘স্লামডগ মিলিয়নিয়ার’ (২০০৮), রন হাওয়ার্ডের ‘ইনফারনো’ (২০১৬) এবং অ্যাঙ লি পরিচালিত ‘লাইফ অব পাই’সহ (২০১২)।
বাদ যায়নি বাংলাদেশের ছবিও। মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর পরিচালনায় ‘ডুব’ ছবির প্রধান চরিত্রে দেখা গেছে তাকে। এর ইংরেজি নাম ‘নো বেড অব রোজেস’। এতে বাংলাদেশের কিংবদন্তি সাহিত্যিক ও নির্মাতা হুমায়ূন আহমেদের জীবনের ছায়া পাওয়া যায় তার জাভেদ চরিত্রে। এটি সহ-প্রযোজনা করেছিলেন তিনি।
তথ্যসূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া, এনডিটিভি

সবশেষ আপডেট

উত্তরকাল

বিশ্বকে জানুন বাংলায়

All original content on these pages is fingerprinted and certified by Digiprove
%d bloggers like this: