।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

যমুনা টেলিভিশন বিশ্বমঞ্চে সাফল্যের ধাপ ফেলেছে। বাংলাদেশের অন্যতম শীর্ষ এই সংবাদমাধ্যমটির ইউটিউব চ্যানেল বিশ্বের শীর্ষ পাঁচের তালিকায় উঠে এসেছে। মার্কিন জরিপকারী প্রতিষ্ঠান সোশ্যাল ব্লেড-এর র‍্যাংকিংয়ে বিশ্বের নামিদামি অনেক সংবাদমাধ্যমকে পেছনে ফেলে পঞ্চম স্থানে পা রেখেছে যমুনা। বৈশ্বিক তালিকায় বাংলাদেশের কোনো সংবাদমাধ্যমের ইউটিউব চ্যানেলের শীর্ষ পাঁচে উঠে আসার ঘটনা এই প্রথম।

যমুনা টেলিভিশনের ওয়েবসাইটে এ সংক্রান্ত এক প্রতিবেদনে স্টেশনটির প্রধান বার্তা সম্পাদক ফাহিম আহমেদের প্রতিক্রিয়া তুলে ধরা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘এই অর্জন আমাদের আরও দায়িত্বশীল করে তুলবে। করোনা পরিস্থিতির কথা চিন্তা করে আমরা কোনো ধরনের উদযাপন করছি না। তবে আমাদের দর্শক, ফলোয়ারদের প্রতি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি। আমাদের বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে তাদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ আমাদের কর্মস্পৃহা আরও বৃদ্ধি করবে।’

দেশের প্রথম সারির টেলিভিশন চ্যানেল যমুনা এ মাসেরই গোড়ার দিকে তাদের পথচলার ৬ বছর পেরিয়েছে। ‘সামনে থাকে সামনে রাখে’ স্লোগান ধারণকারী এই সংবাদমাধ্যমটি ইতোমধ্যে দেশের মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় চ্যানেল হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে। দেশের বাইরে বাংলাভাষি দর্শকদের কাছেও চ্যানেলটি এখন সমান জনপ্রিয়।

যমুনা টেলিভিশন ছাড়া এই তালিকার সেরা একশটির মধ্যে স্থান পেয়েছে দেশের আরও একটি সংবাদভিত্তিক টেলিভিশনের ইউটিউব চ্যানেল। ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশন এই তালিকার ৫৯তম স্থানে রয়েছে।    

সোশ্যাল ব্লেডের এই তালিকায় শীর্ষে আছে ভারতের সংবাদভিত্তিক চ্যানেল আজ তাক। জনপ্রিয় মার্কিন সংবাদভিত্তিক চ্যানেল সিএনএন’র অবস্থান ৯ নম্বরে। ভারতের জনপ্রিয় সংবাদ মাধ্যম এনডিটিভির অবস্থান দশম। মার্কিন সংবাদ মাধ্যম ফক্স নিউজের অবস্থান চতুর্দশ। পাকিস্তানের শীর্ষ সংবাদ চ্যানেল জিও নিউজের অবস্থান ৪০তম। ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম বিবিসি নিউজের হিন্দি সংস্করণের অবস্থান ২৫তম আর ইংরেজি সংস্করণের অবস্থান ৬১তম। আল জাজিরা অ্যারাবিক আছে ৪২তম অবস্থানে। দ্যা টেলিগ্রাফের ইউটিউব চ্যানেল ৯৪তম অবস্থানে। সোশ্যাল ব্লেডের তালিকায় সাবস্ক্রাইবারের পাশাপাশি চ্যানেলের কন্টেন্টের ভিউ, ফিডব্যাক ও সামগ্রিক প্রভাব বিবেচনায় নেয়া হয়েছে।