।। সংবাদদাতা, নওগাঁ ও নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী।।

নওগাঁর রাণীনগরে ঢাকা থেকে আসা এক যুবককে করোনা আক্রান্ত সন্দেহে বাড়িতেই ঢুকতে দেননি গ্রামবাসী। আলামিন নামের ওই যুবককে এরপর স্থানীয় হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখান থেকে তাকে পাঠানো হয় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় সেই হাসপাতালেই রাতে তার মৃত্যু হয়।

চিকিৎসকদের দাবি, করোনায় আক্রান্ত হয়ে নয়, ‘ব্রেইন ইনফেকশনে’ ওই রোগীর মৃত্যু হয়েছে।

আলামিনের বাবা রাণীনগরের অলঙ্কারদিঘি গ্রামের মকলেছুর রহমান জানান, তার ছেলে ঢাকায় একটি গার্মেন্ট কারখানায় কাজ করতেন। শুক্রবার রাতে জ্বর আর কাশি নিয়ে অসুস্থ্য অবস্থায় তিনি গ্রামে আসেন। কিন্তু তার করোনা সংক্রমন হয়েছে, এমন সন্দেহে তাকে গ্রামবাসী গ্রামে ঢুকতে বাধা দেন। পরে আলামিনকে নিয়ে মকলেছুর প্রথমে রাণীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যান। সেখান থেকে রোগীকে পাঠানো হয় নওগাঁ সদর হাসপাতালে।

নওগাঁ জেলার সিভিল সার্জন ডা. আখতারুজ্জামান জানান, রোগীর অবস্থা আশঙ্কাজনক বিবেচনায় সঙ্গে সঙ্গেই তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রামেক হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়।

রামেক হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস জানান, আলামিন নামের ওই রোগীকে শনিবার বিকেল ৩টার দিকে রামেক হাসপাতালে আনা হয়। রাত ৮টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

ডা. সাইফুল বলেন, ‘ব্রেইন ইনফেকশনের (মস্তিস্কের সংক্রমনজনিত) কারণে রোগীর মৃত্যু হয়। আমরা তার মধ্যে করোনার উপসর্গ পাইনি।’

নওগাঁর সিভিল সার্জন জানান, স্বাস্থ্য বিভাগ এই রোগীকে করোনা আক্রান্ত হিসেবে সন্দেহ না করার কারণে তার নমুনা পরীক্ষার প্রয়োজন হবে না।