।। বাংলা ট্রিবিউন, ঢাকা ।।

বাংলাদেশসহ বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) প্রকোপ বেড়েছে। এই পরিস্থিতির মধ্যেই শনিবার (২১ মার্চ) অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ঢাকা-১০, গাইবান্ধা-৩ ও বাগেরগাট-৪ আসনের উপনির্বাচন। তবে ভোটকেন্দ্রে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহারে করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি রয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা। শুক্রবার (২০ মার্চ) দুপুরে কোভিড-১৯ বিষয়ে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে তিনি সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন।

প্রশ্নোত্তর পর্বে ইভিএম ব্যবহারের বিষয়ে জানতে চাইলে অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা উল্টো সাংবাদিকদের প্রশ্ন করেন, ‘এই প্রশ্নের উত্তর কী স্বাস্থ্য অধিদফতর দেবে?’

এরপর তিনি বলেন, ‘নির্বাচনে ইভিএম মেশিনের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ অবশ্যই ঝুঁকিপূর্ণ। কারণ, ইভিএমে বারবার একই বাটনে চাপ দিয়ে ভোট দিলে সংক্রমণের ঝুঁকি থাকে।’

নির্বাচন কমিশন সচিব ভোট দিয়ে হাত ধুয়ে ফেলার যে পরামর্শ দিয়েছেন এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘এটা হতেই পারে। বারবার হাত ধুয়ে ভোট দিলে তো সংক্রমণ না হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।’

তিনি বলেন, রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) আগেই একটি নির্দেশনা দিয়েছে, সারা দেশে যেন পুরো কমিউনিটি যেন সংক্রমিত না হয়, সেই জন্য যে কোনও ধরনের গণজমায়েত বা সভা সমাবেশ না করার জন্য বলা হয়েছে। স্বাস্থ্য অধিদফতর এবং রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) দেওয়া পরামর্শ না মেনে চললে তাদের বিরুদ্ধে সরকার কঠোর ব্যবস্থা নেবে। তাই সুস্থ থাকার পক্ষে পরামর্শগুলো সবার মেনে চলার জন্য আহ্বান জানানো হচ্ছে।

লকডাউনের বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক বলেন, ‘লকডাউন মানে সবাই বাড়িতে থাকবেন। ওই এলাকার কেউ ভেতর থেকে বাইরে যেতে পারবেন না। বাইরে থেকে ভেতরে যেতে পারবেন না। অতি প্রয়োজনীয় বিষয় ছাড়া বাসা থেকে কেউ বের হবেন না।’

করোনা আক্রান্ত রোগীর মৃতদেহ সৎকারের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এ বিষয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার একটি প্রটোকল রয়েছে। আমরা সেটিও দেখছি। পাশাপাশি বিভিন্ন ধর্মের বিষয়গুলো বিবেচনায় রেখে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। আমরা এ বিষয়ে কাজ করছি, জানাবো।’