।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

করোনা ভাইরাসের মহামারি ঠেকাতে দেশের সব প্রেক্ষাগৃহ বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আজ (১৬ মার্চ) বিকাল সাড়ে ৫টায় বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতি আনুষ্ঠানিক ও লিখিতভাবে এ ঘোষণা দিতে যাচ্ছে। তবে সিনে মাল্টিপ্লেক্সগুলো এর আওতার বাইরে থাকবে।

মৌখিকভাবে বিষয়টিতে সমিতির নেতারা একমত হয়েছেন বলে জানালেন এর উপদেষ্টা মিয়া আলাউদ্দিন।

তিনি বলেন, ‘করোনা থেকে বাঁচতে সরকার ইতোমধ্যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেছে। প্রেক্ষাগৃহও জনসমাগমের একটি জায়গা। জনসচেতনতায় তাই এগুলো বন্ধের সিদ্ধান্ত হয়েছে। আজ বিকেল ৫টায় সমিতির এক জরুরি সভা আছে। সেটা শেষে আমরা চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের কথা জানাবো।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমার ব্যক্তিগত মতামত হলো, এই সময় সিনেমা হল বন্ধ রাখা প্রয়োজন। তাছাড়া এই মুহূর্তে এমনিতেই সিনেমা হলে দর্শক কম। সভায় সবদিক বিবেচনা করেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

জানান, করোনা ভাইরাসের প্রকোপ না কমলে এ সিদ্ধান্ত বহাল থাকবে। তবে আপাতত ১৮ মার্চ থেকে পরবর্তী ১৫ দিন বন্ধের ঘোষণা দেওয়া হবে।

এদিকে বিশ্বে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৭১ হাজার ১১২ জন। এরমধ্যে মারা গেছেন ৬ হাজার ৫৫৬ জন। বাংলাদেশে ইতোমধ্যে ৮ জন শনাক্ত হয়েছেন। যার সবই বিদেশফেরত এবং তাদের দ্বারা সংক্রমিত। 

তাই আজ (১৬ মার্চ) সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধের ঘোষণা দিয়েছেন। এর পরপরই চলচ্চিত্রের এই সংগঠন হল বন্ধের সিদ্ধান্ত নিলো।

অন্যদিকে, করোনা ভাইরাসের কারণে চীনে ১ হাজার হল বন্ধ করা হয়েছিল। ফ্রান্স মার্চের প্রথম সপ্তাহে ৩৮টি হলের প্রদর্শনী বাতিল করে। সেই সময়ে ইতালি তাদের অর্ধেক প্রেক্ষাগৃহ বন্ধ করে দেয়। পরবর্তী সময়ে দেশটিতে কার্যত সব হল বন্ধ হয়ে যায়।