।। বাংলা ট্রিবিউন, ঢাকা ।।

বিজ্ঞাপন সংক্রান্ত নতুন বিধান আসছে উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বিদেশি শিল্পী দিয়ে বিজ্ঞাপন তৈরি করলে অনেক বেশি ট্যাক্স দিতে হবে। তিনি বলেন, ‘শুধু শিল্পী নয়, যারা তৈরি করবেন, তাদেরও বেশি ট্যাক্স দিতে হবে।’

শুক্রবার (৬ মার্চ) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিতে সম্প্রচার সাংবাদিক কেন্দ্রের (ব্রডকাস্ট জার্নালিস্ট সেন্টার) দ্বিতীয় সম্প্রচার সম্মেলন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আগে দেশের পণ্যের বিজ্ঞাপনগুলো বিদেশে চলে যেতো, আমরা সেটি বন্ধ করেছি। এখন অন্তত বাংলাদেশি পণ্যের বিজ্ঞাপন বিদেশি চ্যানেলে প্রচার হয় না। একটি-দুটি বিজ্ঞাপন হয়, তারা কিন্তু সেই দেশে নিবন্ধিত। এক্ষেত্রে কোনও ধরনের বিজ্ঞাপনই বিদেশি চ্যানেল প্রচার করতে পারে না। আমরা এটিতে কড়াকড়ি আরোপের চেষ্টা করেছি। কিন্তু কারিগরি কিছু ত্রুটির কারণে সম্ভব হচ্ছে না।’ ক্যাবল অপারেটর ডিজিটাল না হলে এটি রোধ সম্ভব হবে না। আমরা এক্ষেত্রে একটি সময়সীমা নির্ধারণ করে দিয়ে পুরোপুরি বাস্তবায়ন করতে চাই।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের দেশের ছেলেমেয়েরা যারা অভিনয় করেন, বিজ্ঞাপনে অভিনয় করেন, তারা অনেক স্মার্ট। কিন্তু আমরা দেখতে পাই— বাংলাদেশি পণ্যের বিজ্ঞাপন বিদেশ থেকে দ্বিতীয় মানের শিল্পী দিয়ে তৈরি করে আনা হয়।’

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘আমরা একটি বিধান করতে যাচ্ছি, আলোচনা করেছি। মুক্তবাজার অর্থনীতিতে যে কেউ যে কাউকে দিয়ে বিজ্ঞাপন বানিয়ে আনতে পারেন। অভিনেতা ও অভিনেত্রীদের দিয়ে বিজ্ঞাপন বানিয়ে আনতে পারেন, কিন্তু এ ক্ষেত্রে অনেক বেশি ট্যাক্স দিতে হবে। শুধু যিনি বিজ্ঞাপনচিত্রে অভিনয় করবেন তাকেই নয়, যিনি বিজ্ঞাপন বানাবেন তাকেও ট্যাক্স দিতে হবে। যিনি প্রদর্শন করবেন তাকেও ট্যাক্স দিতে হবে। আমি এনবিআরের সঙ্গে কথা বলেছি, অর্থমন্ত্রীকেও বিষয়টি জানিয়েছি। এটি হলে আমাদের দেশের কলাকুশলী ও শিল্পের সুরক্ষা হবে।’

তথ্যমন্ত্রী প্রশ্ন রেখে বলেন, ‘একটি বাচ্চা ছেলের বিজ্ঞাপনও কি বিদেশ থেকে বানিয়ে আনতে হয়? এ ক্ষেত্রে আমরা কড়াকড়ি করতে যাচ্ছি। দেশের শিল্পকে সুরক্ষা দিতে এটি করতে যাচ্ছি।’

সম্প্রচার সম্মেলনে ‘নীতি সংলাপ-কর্মী সুরক্ষা’ শীর্ষক সূচনা পর্বে বিজেসি সভাপতি রেজওয়ানুল হক রাজার সভাপতিত্বে ও সদস্য-সচিব শাকিল আহমেদের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম, ঢাকায় নিযুক্ত ভারপ্রাপ্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার জাভেদ প্যাটেল ও বিজেসি’র উপদেষ্টা একাত্তর টিভির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোজাম্মেল হক বাবু।