।। বাংলানিউজ, ঢাকা ।।

জাতিসংঘে বাংলাদেশের বিষয়ে কোনো তথ্য উপস্থাপনের ক্ষেত্রে বিকল্প উৎস থেকে তথ্য যাচাইয়ের আহ্বান জানিয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। জেনেভায় মানবাধিকার বিষয়ক জাতিসংঘের হাইকমিশনার মিশেল ব্যাচলেটের সঙ্গে এক বৈঠকে তিনি এ আহ্বান জানান।

বৃহস্পতিবার (৫ মার্চ) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বৃধবার (৪ মার্চ) জেনেভায় জাতিসংঘ মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার মিশেল ব্যাচলেটের সঙ্গে বৈঠক করেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

বৈঠকে প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণতান্ত্রিক রীতিনীতি, আইনের শাসন শক্তিশালী করতে বাংলাদেশে মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

প্রতিমন্ত্রী মানবাধিকার কাউন্সিলের নিবিড়ভাবে কাজ চালিয়ে যাওয়ার জন্য বাংলাদেশ সরকারের সদিচ্ছাকে পুনর্ব্যক্ত করেন।

বৈঠকে জাতিসংঘ মানবাধিকার কাউন্সিলের সম্প্রতি এক অধিবেশনে বাংলাদেশ বিষয়ে হাইকমিশনারের মন্তব্য সম্পর্কে উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম জাতিসংঘের সংস্থাগুলোকে অসমর্থিত তথ্য ব্যবহার নিয়ে আলোচনা করেন। একই সঙ্গে বিভ্রাট এড়াতে জাতিসংঘের মানবাধিকার প্রধানকে বিকল্প উৎস থেকে প্রাপ্ত তথ্য যাচাই করার আহ্বান জানান প্রতিমন্ত্রী।

বৈঠকে মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার বলেন, বিশ্বস্ত অংশীদার হিসেবে বাংলাদেশের প্রমাণিত রেকর্ড স্বীকৃতি দেয় জাতিসংঘ। একই সঙ্গে জাতিসংঘ টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য অর্জন ও আইনের শাসন বহাল রাখার জন্য বাংলাদেশ সরকারের অঙ্গীকারকেও স্বীকৃতি দেয়।

বৈঠকে সম্পদের ঘাটতি থাকা সত্ত্বেও জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়ার জন্য বাংলাদেশ সরকারের প্রশংসা করেন ব্যাচলেট। তিনি রোহিঙ্গা শিশুদের শিক্ষার সুযোগ দেওয়ার জন্য বাংলাদেশ সরকারের প্রতি সন্তোষ প্রকাশ করেন।

হাইকমিশনার ব্যাচলেট মুজিববর্ষে বাংলাদেশ সফরে প্রতিমন্ত্রীর আমন্ত্রণ গ্রহণ করেন।

প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম রোহিঙ্গা মানবিক সঙ্কটের জন্য যৌথ প্রতিক্রিয়া পরিকল্পনা- জেআরপি আলোচনায় জেনেভায় রয়েছেন।