।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

ইচ্ছা করে কেউ করোনাভাইরাসের উপসর্গ গোপন করলে কিংবা ভুল তথ্য দিলে তা ফৌজদারি অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে। আর সে অপরাধের শাস্তি মৃত্যুদণ্ডও হতে পারে বলে নির্দেশনা দিয়েছে চীনের একটি আদালত। জানিয়েছে বার্তা সংস্থা ডিপিএ।

শনিবার ওই আদালতের প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কেউ ভ্রমণের তথ্য লুকালেও তা ফৌজদারি অপরাধ হিসেবে বিবেচিত হবে। কেউ ভাইরাসটি ছড়াতে সহায়তা করলে জননিরাপত্তা আইনে তাকে অভিযুক্ত করা যাবে। গুরুতর ক্ষেত্রে সে অপরাধের শাস্তি ১০ বছরের জেল, যাবজ্জীবন অথবা মৃত্যুদণ্ড।

এছাড়া জ্বর, কাশি অথবা অন্য কোনো রোগে আক্রান্তদের সড়ক, রেল কিংবা বিমানে ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন।

নববর্ষের দীর্ঘ ছুটি যারা শহরে ফিরছেন তাদের ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে বলে ঘোষণা দিয়েছে বেইজিং কর্তৃপক্ষ। ইচ্ছা করলে বাড়িতেও তারা কোয়ারেন্টাইনে থাকতে পারেন। নির্দেশ অমান্যকারীদের শাস্তির কথাও ঘোষণা করা হয়েছে।

চীনে করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত মারা গেছে ১৫৩৩ জন। আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৬৭ হাজার।