।। শোবিজ প্রতিবেদন ।।

বয়স সবেমাত্র ১৮ বছর। এটুকু বয়সেই বাজিমাত করলেন আমেরিকান কিশোরী বিলি আইলিশ। পুরস্কারের বন্যায় ভাসলেন এই পপ সেনসেশন। গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডসের শীর্ষ চারটি পুরস্কারই উঠেছে তার হাতে। এর মধ্যে ‘ব্যাড গাই’ গানের সুবাদে রেকর্ড অব দ্য ইয়ার ও সং অব দ্য ইয়ার জিতেছেন তিনি। তার ‘হোয়েন উই অল ফল অ্যাস্লিপ, হোয়্যার ডু উই গো?’ হয়েছে অ্যালবাম অব দ্য ইয়ার। সেরা নতুন শিল্পীর ট্রফি দেওয়া হয়েছে তাকেই।

এর মাধ্যমে বিরল এক কীর্তি গড়লেন বিলি আইলিশ। বিশ্বসংগীতের সবচেয়ে সম্মানজনক স্বীকৃতি গ্র্যামির একই আসরে উল্লিখিত চারটি বিভাগে সবশেষ ১৯৮১ সালে পুরস্কার পেয়েছিলেন ক্রিস্টোফার ক্রস। তবে সর্বকনিষ্ঠ হিসেবে এই অর্জন কেবল বিলি আইলিশের দখলে। শুধু সামনের সারির চারটি পুরস্কারই নয়, তার ‘হোয়েন উই অল ফল অ্যাস্লিপ, হোয়্যার ডু উই গো?’ সেরা ইঞ্জিনিয়ার্ড অ্যালবাম (নন-ক্লাসিক্যাল) সম্মান পেয়েছে।

অ্যালবাম অব দ্য ইয়ার বিভাগে সর্বকনিষ্ঠ বিজয়ী হিসেবে রেকর্ড গড়েছেন বিলি আইলিশ। এক দশক আগে ২০ বছর বয়সে ‘ফিয়ারলেস’-এর জন্য পুরস্কারটি পেয়েছিলেন আমেরিকান গায়িকা টেলর সুইফট। তাকে সিংহাসনচ্যুত করে আরিয়ানা গ্রান্ডের প্রতি ভালো লাগা প্রকাশ করেন বিলি। তিনি তখন বলেন, ‘আমার চোখে আরিয়ানা পুরস্কারটির দাবিদার।’ এ সময় দর্শকসারি থেকে আরিয়ানা করতালি দেন ও চুম্বন উড়িয়ে দেন।