।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার পর চরম উত্তেজনা চলছে ইরান ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে। এই উত্তেজনার মধ্যেই ইসরায়েল থেকে দূরপাল্লার ‘স্পাইক প্রিসিশন মিসাইল’ কিনছে যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্র এটিকে তাদের শক্তিশালী এটাক হেলিকপ্টারগুলোতে ব্যবহার করতে চায়। ভবিষ্যতের অভিযানগুলোতে আরও সফলতা নিশ্চিতে এই আপগ্রেশনের পদক্ষেপ হাতে নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। ইতোমধ্যে এটি কেনার বিষয়টি চূড়ান্ত করা হয়েছে। খবর জেরুজালেম পোস্টের।

যুক্তরাষ্ট্রের এপাচি হেলিকপ্টারগুলো থেকে ১২ কিলোমিটার দূরের টার্গেট ধ্বংস করা সম্ভব। তবে এতে সন্তুষ্ট নয় দেশটি। যুক্তরাষ্ট্র এখন হেলিকপ্টার থেকে আরও দূরের টার্গেট যেমন, শত্রু ট্যাংক, বাংকার ও সেনাদলের ওপর আঘাত হানার সক্ষমতা চায়।

এর জন্য দেশটি বেছে নিয়েছে ইসরায়েলের এই অভিনব উদ্ভাবনকে। স্পাইক হচ্ছে ইসরায়েলের পঞ্চম প্রজন্মের ইলেক্ট্রো-অপটিকাল মিসাইল। এটির রেঞ্জ ২৫ কিলোমিটারেরও বেশি। রাফায়েল প্রতিরক্ষা সিস্টেমের উদ্ভাবন ও কয়েক ধাপে এর উন্নয়ন করেছে ইসরায়েল। এ বছর দেশটি এই মিসাইলের বেশ কয়েকটি সফল পরীক্ষা চালিয়েছে। হেলিকপ্টার থেকে চালানো পরীক্ষাগুলোও সফল হয়েছে। এছাড়া, নয়টি মিসাইল সফলভাবে টার্গেটে হামলা করেছে। এরমধ্যে একটি টার্গেট ছিল অন্ধকারে এবং চলমান।  তবে ঠিক কতটি মিসাইল যুক্তরাষ্ট্র এখন কিনতে চায় তা জানানো হয়নি ওই প্রতিবেদনে।