।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

ইরানকে কড়া হুঁশিয়ারি জানিয়েছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ইরাকে অবস্থিত মার্কিন দূতাবাসে হামলা ও ভাঙচুরের জন্য ইরানকে দায়ী করে তিনি এই হুঁশিয়ারি দেন। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প নতুন বছরের সূচনা প্রাক্বালে এক টুইট বার্তায় বলেন, ইরানকে চরম মূল্য দিতে হবে। তিনি আরও বলেছেন, এটা কোন সতর্কতা না, হুমকি।

গত রোববার ইরাকের ইরান-সমর্থিত একটি শিয়াগোষ্ঠীর স্থাপনায় যুক্তরাষ্ট্র বিমান হামলা চালালে ২৫ জন যোদ্ধা নিহত হয়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে দেশটিতে অবস্থিত মার্কিন দূতাবাসে বিক্ষোভকারীরা হামলা চালিয়েছে বলে আল-জাজিরার প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, বিক্ষোভকারীরা ‘যুক্তরাষ্ট্রের ধ্বংস হোক, ধ্বংস হোক’ স্লোগানে মার্কিন দূতাবাসে ঢোকার চেষ্টা করে। এ সময় তারা পানির বোতাল ছুড়ে মারে দূতাবাসের দিকে। এছাড়া দূতবাসের বাইরে চারপাশে যেসব নিরাপত্তা ক্যামেরা লাগানো ছিল, ঢিল ছুড়ে সেসব ক্যামেরা ভেঙে দেয়। তবে কারো হাতে অস্ত্র দেখা যায়নি।

গত সপ্তাহে ইরাকের একটি সামরিক ঘাঁটিতে রকেট হামলায় এক মার্কিন ঠিকাদার নিহত হওয়ার বদলা হিসেবে এই হামলা বলে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়। কেননা, হামলার জন্য ওই শিয়া গোষ্ঠীকে দায়ী করছে যুক্তরাষ্ট্র।

বাগদাদের পাশের ঐ এলাকায় মার্কিন হামলায় যেসব যোদ্ধা নিহত হয়েছিল, তাদের শেষকৃত্য সম্পন্ন হওয়ার পর গতকাল বিক্ষোভকারীরা মার্কিন দূতাবাস অভিমুখে মিছিল নিয়ে উপস্থিত হয়ে সেখানে হামলা চালায়। ইরাকের ব্যাপক নিরাপত্তা বেষ্টনী দিয়ে তৈরি ‘গ্রিন জোনে’ মার্কিন দূতবাস অবস্থিত।