।। বাংলানিউজ, ঢাকা ।।

শীতের সকালে নরম আলোয় গণভবনের সবুজ মাঠে খেলাধুলায় মেতে আছে স্কুলের ছোট্ট শিশুরা। পরম মমতায় যেন ‘সহপাঠী’দের মতো তাদের সঙ্গে খেলায় মেতেছেন টানা তিনবারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও।

কখনও শিশুদের দোলনায় বসিয়ে দোল খাওয়াচ্ছেন, আবার কখনও বুকে টেনে নিয়ে স্নেহের পরশ বুলিয়ে দেন বঙ্গবন্ধু কন্যা। সরকার প্রধানের এমন স্নেহভরা সঙ্গ দেখে আনন্দে আত্মহারা শিশুরাও।

মঙ্গলবার (৩১ ডিসেম্বর) সকালে গণভবন চত্বরে ছিল এমনই দৃশ্য। এর আগে গণভবনের বাঙ্কোয়েট হলে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী, ইবতেদায়ি, জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষার ফলপ্রকাশ এবং দেশব্যাপী বই উৎসবের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ফলপ্রকাশ ও বই উৎসব এই অনুষ্ঠানে প্রাথমিক বিদ্যালয় ও নিম্ন মাধ্যমিক পর্যায়ের স্কুল শিশুরাও অংশ নেয়। ফলপ্রকাশের পর বই উৎসবে শিশুদের হাতে নতুন বই তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী।

এরপর সেখানে থাকা দেশের বিভিন্ন স্কুলের এসব শিশুদের গণভবন মাঠে ডেকে নিয়ে যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেখানে সব শিশুদের সঙ্গে ফটোসেশন শেষে তাদের ঘুরে দেখতে ও খেলাধুলা করতে বলেন।

সুযোগ পেয়ে শীতের সকালের সূর্যের নরম আলোয় দৌড়াদৌড়ি, ছুটোছুটি, হৈ-হুল্লোড়, খেলাধুলায় মেতে ওঠে শিশুরা। পাখির কিচির-মিচিরের মতো তারাও গণভবন চত্বরের সবুজ মাঠকে বেশ কিছু সময়ের জন্য সরব করে তোলে।

ভেতরের সবুজ মাঠের নির্মিত বেশ কয়েকটি দৃষ্টিনন্দন কুড়ে ঘর, স্লাইডে পিছলে পড়া, দোলনায় দোল খাওয়া, ট্রেম্পলিন এ লম্ফ-ঝম্ফসহ বিভিন্ন ধরনের খেলায় মেতে ওঠে শিশুরা।

শিশুদের প্রতি স্বভাব-সুলভ মমতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও তাদের সঙ্গে খেলায় মেতে ওঠেন। শিশুদের দোলনায় বসিয়ে নিজে দোল দেন প্রধানমন্ত্রী। তাদের কাছে টেনে আদরও করেন তিনি।

সেখানে থাকা কয়েকটি প্রতিবন্ধী শিশুকেও বুকে টেনে নেন প্রধানমন্ত্রী। তাদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন তিনি।

পরে শিশুদের প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে চকলেট, মিষ্টি, ফলসহ হালকা নাস্তা দিয়ে গণভবনে আপ্যায়ন করা হয়। নতুন বইয়ের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গ, গণভবনের সবুজ মাঠে খেলা-ধূলায় শিশুদের আনন্দ বাড়িয়ে তোলে কয়েকগুণ।

এ সময় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে অন্যান্যের মধ্যে ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলসহ সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।