।। নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী ।।

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা বলেছেন, চাকরিজীবনে অনেক সরকারি কর্মকর্তা অনিয়মে জড়িয়ে পাপ করেছেন। কিন্তু শ্রমিকরা কখনও অন্যায় করেননি। তারা পবিত্র। শ্রমিকদের এই অসময়ে তাদের পাশে দাঁড়িয়ে কর্মকর্তাদের ‘পাপ মোচনের’ এখন সময় এসেছে। শ্রমিকদের দাবি মেনে নিয়ে নিজেদের পাপ মোচন করা উচিত।

সোমবার সকালে রাজশাহী পাটকলের আন্দোলনরত শ্রমিকদের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করতে গিয়ে তিনি এ কথা বলেন। দাবি আদায়ে শ্রমিকরা তখন দ্বিতীয় দিনের মতো আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছিলেন। এর আগে রোববার দুপুর থেকে রাষ্ট্রায়াত্ব এই পাটকলের শ্রমিকরা অনশন শুরু করেন।

বাদশা বলেন, মন্ত্রণালয়ে এবং বিজেএমসিতে কিছু শ্রমিকবিরোধী লোক আছে যারা শ্রমিকদের স্বার্থের কথা ভাবেন না। নিজেদের স্বার্থ দেখতে গিয়ে তারা শ্রমিকদের যুক্তিসঙ্গত দাবি মেনে নিচ্ছেন না। অথচ এই শ্রমিকরাই দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। তাই যে সকল কর্মকর্তারা এই দাবিকে সমর্থন করছেন না বা পাশে থাকছেন না তাদের উচিত এখন শ্রমিকদের পাশে থাকা।

রাজশাহী-২ (সদর) আসনের এই সংসদ সদস্য বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারে পাটজাত দ্রব্যের যে দাম সেই দামের সঙ্গে মিল রেখে রাষ্ট্রায়াত্ব শিল্প-কারখানার উৎপাদিত পণ্য বিদেশে রফতানি করলে শ্রমিকরা ন্যায্য বেতন ভাতা পাবেন। তাহলে তাদের এই শীতের মধ্য আন্দোলন করতে হতো না। কিন্তু কিছু আমলারা নিজেদের স্বার্থের জন্য সঠিক সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন না। আর এর ফল ভোগ করছেন সাধারণ মেহনতি শ্রমিক। প্রতিনিয়ত বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন তারা।

বাদশা বলেন, এই শ্রমিকদেরই ইহাহিয়া, আইয়ুব খান ভয় পেতো। কিন্তু আমাদের তো তাদের ভয় পাবার কিছু নেই। আমি সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানাবো, এই শ্রমিকরাই দেশের অর্থনীতি চাঙা রাখে। কিন্তু যারা বিদেশে টাকা পাচার করেছে তারা দেশের ক্ষতি করছে। তাই সবার আগে শ্রমিকদেরই দাবি মেনে নেয়া দরকার। শ্রমিকদের স্বাভাবিক জীবন নিশ্চিত করা দরকার।

তিনি বলেন, আমি সবসময়ই মেহনতি মানুষের পাশে আছি। আজ রাস্তায় এসে বসেছি। এরপর পার্লামেন্টে গিয়ে কথা বলবো। আমি পাট ও বস্ত্র মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর সঙ্গেও কথা বলবো, যেন শ্রমিকরা তাদের ন্যায্য অধিকার বুঝে পান। কারণ, শ্রমিক বাঁচলেই বাংলাদেশ বাঁচবে।

এ সময় তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন ওয়ার্কার্স পার্টির রাজশাহী মহানগর সম্পাদকমণ্ডলির সদস্য মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আজাদ, জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশনের জেলা সভাপতি ফেরদৌস জামিল টুটুল, সাধারণ সম্পাদক অসিত পাল, সহ-সভাপতি সিরাজুর রহমান খান, কাটাখালি পৌর ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি মঞ্জুরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আলাল মোল্লা প্রমুখ।