।। টাইমস অব ইন্ডিয়া, নয়াদিল্লি ।।

ভারত মহাসাগরের পশ্চিমাঞ্চলে সামরিক ও অর্থনৈতিক- দুদিক থেকেই চীনের উপস্থিতি বাড়তে থাকায় ভারতও সেখানে নিজের উপস্থিতি সুসংহত করার উদ্যোগ নিয়েছে। এরই অংশ হিসেবে চলতি সপ্তাহে নয়া দিল্লি আফ্রিকার পূর্ব উপকূলে দ্বীপ দেশ মাদাগাস্কারে একজন সামরিক অ্যাটাশে নিয়োগ দিয়েছে।

চলতি মাসের গোড়ার দিকে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সিদ্ধান্ত নেয় যে, এই অঞ্চলের দেশগুলোকে একটি ছাতার নিচে নিয়ে আসা হবে। মন্ত্রণালয়ের ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চল বিভাগের আওতায় রয়েছে শ্রীলঙ্কা, মালদ্বীপ, মৌরিতাস, সিসিলিস। এই বিভাগ এখন মাদাগাস্কার, কমরো দীপপুঞ্জ ও ফ্রেঞ্চ রিইউনিয়নভুক্ত দ্বীপগুলোও দেখভাল করবে।

ভারত সরকার মনে করছে, এই উদ্যোগ পশ্চিম ভারত মহাসাগরে কৌশলগত প্রবেশের পথে সহায়ক হবে। এই অঞ্চলটি আফ্রিকায় চীনের প্রবেশদ্বার। সম্প্রতি মাদাগাস্কার ও কমরোর সঙ্গে প্রতিরক্ষা সহযাগিতা চুক্তি স্বাক্ষর করে ভারত। এরপরেই সামরিক অ্যাটাশে নিয়োগ দেয়া হলো।

ভারত তার কোস্টগার্ডকে (আইসিজি) ভ্যানিলা দ্বীপপুঞ্জ হিসেবে পরিচিত দ্বীপদেশগুলো পর্যন্ত (এর মধ্যে রয়েছে সিসিলিস, মৌরিতাস ও মাইওতি) বিস্তৃত করতে চায়। যার অংশ হিসেবে কোস্ট গার্ডের জাহাজ ‘বিক্রম’ মাদাগাস্কারের বন্দরনগরী তোয়ামাসিনায় শুভেচ্ছা সফরে গিয়েছে।

প্রায়ই সাইক্লোনের শিকার হওয়া মাদাগাস্কার ও কমরো ভারতের কাছে মানবিক সহায়তা ও দুর্যোগ ত্রাণ কার্যক্রমে সহায়তা চেয়েছে।

গত অক্টোবরে ভারতীয় নেতাদের মধ্যে প্রথম উচ্চ পর্যায়ের সফরে ভাইস প্রেসিডেন্ট ভেঙ্কাইয়া নাইডু কমরো সফর করেন।

চলতি বছর ভারতীয় নৌবাহিনীর জাহাজ মাদাগাস্কার সফর করেছে। এর আগে ২০১৮ সালে দেশটির সঙ্গে প্রতিরক্ষা বিষয়ক সমঝোতা চুক্তি সই করে ভারত।

সম্প্রতি দুই দেশ বিভিন্ন প্রতিরক্ষা প্রকল্প নিয়ে আলোচনা করছে বলে জানা গেছে। এর মধ্যে রয়েছে মাদাগাস্কারের প্রতিরক্ষা সদস্যদের সামর্থ্য বৃদ্ধি ও প্রশিক্ষণ। পশ্চিম ভারত সহাসাগরে উপস্থিতি জোরদারের অংশ হিসেবে সরকার ভ্যানিলা দ্বীপ দেশগুলোকে নিয়ে একটি সম্মেলন আয়োজনের চেষ্টা করছে বলে জানা গেছে।