।। বাংলানিউজ, ঢাকা ।।

সরকারের সমালোচনা করে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, সরকারই চায় না খালেদা জিয়া মুক্তি পান। সরকার প্রধানের গতকালের (বুধবার) বক্তব্যে পরিষ্কার ফুটে উঠেছে- বিচার চলাকালীন একটা মামলায় তিনি হস্তক্ষেপ করেছেন। রাষ্ট্রের প্রধান নির্বাহী হয়ে তিনি যে বক্তব্য দিয়েছেন, তা সরাসরি বিচার বিভাগের ওপর হস্তক্ষেপের শামিল।

বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন। জামিন কোনো করুণা নয় এমন মন্তব্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, তার যে মামলা তাতে সাতদিনের মধ্যে জামিন হওয়ার কথা। কিন্তু রাজনৈতিক প্রতিহিংসা ও তাকে রাজনীতি থেকে দূরে রাখার জন্য এ কাজগুলো করা হচ্ছে।

সরকারের সমালোচনা করে বিএনপি মহাসচিব আরও বলেন, খালেদা জিয়া গডফাদার, তিনি রাজার হালে আছেন – সরকারের পক্ষ থেকে যখন এসব কথা বলা হয় তখন বিএসএমএমইউ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ অর্থাৎ যারা রিপোর্ট দেবে তাদের ভয়ভীতি দেখানো হয়েছে। দেশে যে পুরোপুরিভাবে ফ্যাসিবাদ প্রতিষ্ঠা হয়েছে, তার অন্যতম প্রধান অস্ত্র হলো ভয় দেখানো।

তিনি বলেন, এটা কাকতালীয় কি না জানি না। গতকালই (বুধবার) সাবেক প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার মামলার চার্জশিট দেওয়া হয়েছে। খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের রিপোর্ট দিতে ব্যর্থ হওয়ায় বিএসএমএমইউ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আদালত অবমাননা করেছেন।

আন-অফিসিয়াল সূত্রে জানতে পেরেছি যে, মধ্যরাতে এই রিপোর্ট জমা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু সরকারের সরাসরি হস্তক্ষেপে জামিন বন্ধ করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন- স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, সেলিমা রহমান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন প্রমুখ।