।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।। 

ভারতের বাণিজ্যিক রাজধানী মুম্বাই ও পার্শ্ববর্তী থানে শহরে বৃষ্টিতে দেয়াল ধসের দুটি ঘটনায় ১৬ জন নিহত হয়েছেন।

সোমবার রাতভর ভারী বৃষ্টিপাতের সময় এসব দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে এনডিটিভি।

পানিতে রেলপথ ডুবে যাওয়ার পর বেশ কয়েকটি আন্তঃনগর ও দূরপাল্লার ট্রেন যাত্রা বাতিল করা হয়েছে।

বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকায় পূর্বসতর্কতা হিসেবে মঙ্গলবার মুম্বাইয়ে সরকারি ছুটি ঘোষণা করেছে মহারাষ্ট্র সরকার। শহরটির বাসিন্দাদের বাসা থেকে বের না হওয়ার পরামর্শ দিয়েছে তারা।

এক টুইটে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী দেভেন্দ্র ফাডনাভিসের দফতর বলেছে, আবহাওয়া দফতর আজও (মঙ্গলবার) ভারী বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস দেয়ায় জরুরি প্রয়োজন ছাড়া লোকজনকে বাড়ির বাইরে না যাওয়ার পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।

মঙ্গলবার মুম্বাইয়ে শুধু জরুরি সার্ভিসগুলো চালু থাকবে বলে এক ঘোষণায় জানিয়েছে রাজ্য সরকার। মঙ্গলবারও শহরটির সব স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকবে বলে রাতে এক নির্দেশে জানিয়েছেন মিউনিসিপাল কমিশনার।

সোমবার রাতে মুম্বাই বিমানবন্দরে অবতরণ করার সময় স্পাইসজেট এয়ারলাইনের একটি উড়োজাহাজ নিয়ন্ত্রণ হারায়। তবে এতে জয়পুর থেকে আসা উড়োজাহাজটির কোনো আরোহী আঘাত পাননি। যাত্রীদের নিরাপদে সরিয়ে নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে আনন্দবাজার পত্রিকা।

দুর্ঘটনা এড়াতে বিমানবন্দরটির মূল রানওয়ে বন্ধ রাখা হয়েছে। দ্বিতীয় আরেকটি রানওয়ে থেকে বিমান ওঠা-নামা অব্যাহত থাকলেও এতে সময় বেশি লাগছে। এখান থেকে ৫৪টি ফ্লাইটকে বেঙ্গালুরু ও আহমেদাবাদে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।  

মঙ্গলবার ভোররাতে ইস্ট মালাডে একটি সীমানা দেয়াল ধসে ১৩ জন নিহত ও চারজন গুরুতর আহত হন। ধ্বংসস্তূপের নিচে আরও তিন থেকে পাঁচজন লোক আটকা পড়ে থাকতে পারেন বলে শঙ্কা কর্মকর্তাদের।

পার্শ্ববর্তী থানের কল্যাণ এলাকায় একটি স্কুলের দেয়াল ধসে পাশের দুটি বাড়ির ওপর পড়লে তিন বছরের এক শিশুসহ তিনজন নিহত হন।

মালাডের ঘটনায় নিহতদের প্রত্যেকের পরিবারকে পাঁচ লাখ রুপি করে ক্ষতিপূরণ দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে সরকার।

Digiprove sealCopyright protected by Digiprove © 2019
Acknowledgements: বিডিনিউজ
All Rights Reserved