।। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি, রাসিক ।।

যানজট নিরসন ও জনদুর্ভোগ কমাতে দেশের মধ্যে এই প্রথম রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন স্মার্ট অটোরিকশা ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের উদ্বোধন করা হয়েছে। সোমবার (১ জুলাই) বিকেলে নগরভবনে এ কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। একইসাথে অটোরিকশা ও চার্জার রিকশা মালিক ও চালকদের মধ্যে স্মার্ট কার্ড বিতরণ করেন মেয়র। স্মার্ট অটো রিকশা ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের উদ্বোধনের মাধ্যমে দেশের মধ্যে এই প্রথম বিভাগীয় শহর রাজশাহীতে দুই কালারে সকাল ও বিকেল দুই শিফটে অটোরিকশা চলাচল কার্যক্রম শুরু হলো।

মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, যানজট নিরসন এবং জনদুর্ভোগ কমাতে দুই শিফটে অটোরিকশা চলাচলের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। এতে অটোরিকশা ও চার্জার রিকশার সুশৃঙ্খলা ফিরিয়ে আসার পাশাপাশি চালকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত হবে। এতে করে চালকরা লাভবান হবেন।

মেয়র লিটন আরো বলেন, রাজশাহীতে দীর্ঘদিনেও শিল্পায়ন হয়নি। ফলে কর্মসংস্থানের অভাব রয়েছে। জীবিকা নির্বাহের জন্য বিপুল সংখ্যক মানুষ অটোরিকশা ও চার্জার রিকশার সঙ্গে জড়িত। ২০০৮ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত প্রথম মেয়াদে দায়িত্ব পালনের সময় নগরীতে অটোরিকশা ও চার্জার রিকশা চালানোর অনুমতি দিয়েছিলাম। পরবর্তী সময়ে এটিকে নিয়ন্ত্রণ করার জন্য রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন নীতিমালা প্রণয়ণ করেছে।

মেয়র বলেন, নগরীতে টাউন সার্ভিস বাস পরিচালনার প্রস্তাব আমাকে দেয়া হলেও অটোরিকশা ও চার্জার রিকশার সঙ্গে জড়িত প্রায় লক্ষাধিক মানুষের কথা বিবেচনা করে প্রস্তাবটি প্রত্যাখান করেছি। বিকল্প কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি না হওয়া পর্যন্ত টাউন সার্ভিস বাস নামানোর পরিকল্পনা নেই।

অটোরিকশা ও চার্জার রিকশা চালকদের রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন থেকে প্রশিক্ষণ দেয়া হবে ঘোষণা দিয়ে মেয়র বলেন, ট্রাফিক আইন সম্পর্কে সচেতন এবং আইন মেনে চলতে হবে।

রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র-১ ও ১২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার হুমায়ুন কবির বিপিএম। বক্তব্য দেন প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা শাহানা আখতার জাহান। অন্যদের মধ্যে ২১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও সাবেক দায়িত্বপ্রাপ্ত মেয়র নিযাম উল আযীম, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শাওগাতুল আলম, রাজশাহী মহানগর ইজিবাইক মালিক শ্রমিক সমিতির সভাপতি শরিফুল ইসলাম সাগর,  মহানগর জাতীয় রিকশা ভ্যান-শ্রমিক সমিতির সভাপতি সভাপতি লিয়াকত আলী, মহানগর ইজিবাইক শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক রাশেদুজ্জামান রাশেদ উপস্থিথ ছিলেন।

এদিকে অটোরিকশা ও চার্জার রিকশা চলাচলের নির্ধারিত সময় হলো- মাসের ১ম ও ৩য় সপ্তায় সকাল ৬টা হতে দুপুর ২.৩০টা পর্যন্ত মেরুন রঙের অটোরিকশা এবং দুপুর ২.৩০টা হতে রাত ১০.৩০টা পর্যন্ত পিত্তি রঙের অটোরিকশা চলাচল করবে। মাসের ২য় ও ৪র্থ সপ্তায় সকাল ৬টা হতে দুপুর ২.৩০টা পর্যন্ত পিত্তি রং এবং দুপুর ২টা হতে রাত ১০.৩০পর্যন্ত মেরুন রং এর অটোরিকশা চলাচল করবে। তবে শুক্রবার ও সরকারি ছুটির দিনে সারাদিন এবং প্রতিদিন রাত ১০.৩০ থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত উভয় রং এর অটোরিকশা চলবে।

অটোরিকশা দুই শিফটে চললেও চার্জার রিকশার ক্ষেত্রে এই নিয়ম প্রযোজ্য হবে না। তবে চিকন চাকার চার্জার রিকশার চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

অটোরিকশা ও চার্জার রিকশা এবং চালকদের অনলাইন রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রম ১লা জুলাই থেকে শুরু হয়েছে।