।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৬২ রানে ৩ উইকেট হারানোর চাপটা সামাল দিতে চেষ্টা করেন কুশল মেন্ডিস ও অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস। দু’জনের ৭১ রানের জুটিতে তিন অঙ্কের ঘর পার করে শ্রীলঙ্কা। কিন্তু আদিল রশিদ নিজের পঞ্চম ওভার করতে এসে জোড়া আঘাতে আবার লঙ্কানদের চাপে ফেলে দেয়।

সেট ব্যাটসম্যান কুশল মেন্ডিসকে (৪৬) মঈন আলীর হাতে ক্যাচ বানান আদিল। পরের বলেই জীবন মেন্ডিসকে উপহার দেন গোল্ডেন ডাক। তবে তার হ্যাটট্রিক চান্স নষ্ট করে দেন ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা।

এই রিপোর্ট লেখা পযর্ন্ত ৩৫ ওভার শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৫৪ রান সংগ্রহ করেছে শ্রীলঙ্কা। ব্যাটিংয়ে আছেন ম্যাথিউস (৩৫) এবং ডি সিলভা (১৫)।

এর আগে স্কোরবোর্ডে ৩ রান যোগ হতেই দুই ওপেনারকে হারিয়ে বসে শ্রীলঙ্কা। জোফরা আর্চার প্রথম ওভার করতে এসে শেষ বলে লঙ্কান অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নেকে (১) ক্যাচ বানান উইকেটরক্ষক জস বাটলারের হাতে। পরের ওভারের প্রথম বলে ক্রিস ওকস ফেরান কুশল পেরেরাকে (১)।

তবে শুরুর ধাক্কাটা দারুণভাবে সামাল দেয় অভিষেক ফার্নান্দোর ব্যাট। তবে মাত্র ১ রানের জন্য ফিফটি বঞ্চিত হোন তিনি। মার্ক উডের বলে কাট করতে গিয়ে তালুবন্দী হোন আদিল রশিদের হাতে। বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচ খেলতে নেমে ৩৯ বলে ৪৯ রান করেছেন ফার্নান্দো। তার ইনিংসটি সাজানো ছিল ২ ছক্কা ও ৬ চারে।

শুক্রবার (২১ জুন) বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে তিনটায় বিশ্বকাপের ২৭তম ম্যাচে শ্রীলঙ্কা মুখোমুখি হয়েছে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। ম্যাচে টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন লঙ্কান অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে।

সবসময়ই বোলিং এর জন্য বিশেষ পরিচিত শ্রীলঙ্কা এই ম্যাচে বিধ্বংসী ইংল্যান্ডকে থামাতে পারবে কি না, তার উপরেই নির্ভর করছে তাদের একটুখানি বেঁচে থাকা সেমিফাইনালে যাওয়ার আশা।

বিশ্বকাপ ক্রিকেটে নিজেদের আধিপত্য ধরে রাখা ফেভারিট ইংল্যান্ড নিজেদের সবশেষ ম্যাচে আফগানিস্তানকে ১৫০ রানের বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে তুলে নিয়েছে তাদের চতুর্থ জয়। একইসাথে বুঝিয়ে দিয়েছে নিজেদের অবস্থানও। আর ওয়ানডেতে এক ইনিংসে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ছয়ের রেকর্ড গড়ে ইংলিশ অধিনায়ক ইয়ন মরগান এখন বেশ খোজ মেজাজে। তাই পয়েন্ট টেবিলের দুইয়ে থাকা ইংল্যান্ডকে আটকাতে বেশ ঘাম ঝরাতে হবে শ্রী-হীন পারফর্ম্যান্সের লঙ্কানদের।

লঙ্কান বোলারদের মধ্যে ডি সিলভা, উদানা এবং মালিঙ্গা জ্বলে উঠলে ঘাবড়াতে হতে পারে ইংল্যান্ডদের মারমুখী ব্যাটসম্যানদেরও। তবে ব্যাটিং এর জায়গায় একটু দুর্বলতা নিয়েই থাকতে হবে লঙ্কানদের।

বিশ্বকাপে হেড টু হেড পরিসংখ্যানে ১০ বারের সাক্ষাতে ৬ বার জয় পেয়েছে ইংল্যান্ড, আর

৪ বার জয় তুলে নিয়েছে শ্রীলঙ্কা। ৩১০ রান তাড়া করতে নেমে ২০১৫ বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডকে হারিয়েছিল লঙ্কানরা।

শ্রীলঙ্কার স্কোয়াড: দিমুথ করুনারত্নে (অধিনায়ক), নুয়ান প্রদীপ, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস, জীবন মেন্ডিস, থিসারা পেরেরা, ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা, অভিষেক ফের্নান্দো, লাসিথ মালিঙ্গা, কুশল মেন্ডিস (উইকেটরক্ষক), কুশল পেরেরা ও ইশুরু উদানা।

ইংল্যান্ডের স্কোয়াড: ইয়ন মরগান (অধিনায়ক), মঈন আলী, জনি বেয়ারস্টো, জস বাটলার,  জেমস ভিন্স, জোফরা আর্চার, আদিল রশিদ, জো রুট, বেন স্টোকস, ক্রিস ওকস ও মার্ক উড।