।। নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী ।।

নদীপথে অপরাধ প্রতিরোধে রাজশাহী জেলায় প্রথমবারের মতো নৌ পুলিশ তাদের কার্যক্রম শুরু করেছে। রাজশাহী নগরীর কোর্ট এলাকার পশ্চিমে অবস্থিত বাসড়ি এলাকায় রাজশাহী নৌ পুলিশের কার্যালয় ভাড়া নেয়া হয়েছে। বাহিনীটি রাজশাহীর গোদাগাড়ী থেকে চারঘাট পর্যন্ত বিস্তীর্ণ পদ্মা নদী এলাকায় অতন্ত্র প্রহরী হিসেবে দায়িত্ব পালন করবে। বুধবার (১৯ জুন) থেকে সাতজন জনবল দিয়ে বর্তমানে বাহিনীটি আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু করেছে।

কার্যক্রম শুরুর প্রথম দিনই বুধবার রাতে পদ্মা চর এলাকায় নৌপুলিশ অভিযান চালিয়ে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক নিষিদ্ধ কারেন্টজাল উদ্ধার করে। তথ্য নিশ্চিত করে রাজশাহী নৌ পুলিশের অফিস ইনচার্জ (ওসি) জানান, একজন এসআই, একজন এএসআই ও পাঁচজন কন্সটেবল নিয়ে রাজশাহী জেলার বিস্তীর্ণ পদ্মা নদী এলাকায় নৌ পুলিশের কার্যক্রম শুরু করেছি। আর এরই মধ্যে গোদাগাড়ীতেও একটি কার্যালয় ভাড়া করা হয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে সেখানেও একজন এসআই, একজন এএসআই ও একজন কন্সটেবল নিযুক্ত করা হবে। এছাড়া চারঘাট এলাকাতেও প্রয়োজনীয় জনবলসহ একটি কার্যালয় স্থাপন করা হবে। এবাবে পর্যায়ক্রমে জনবল ও কার্যালয় বৃদ্ধি করা হবে।

রাজশাহীর বিস্তীর্ণ নদীপথে টহল দিতে এরই মধ্যে দুইটি নৌকা ভাড়া করা হয়েছে। সেইসঙ্গে নৌকা ও স্পিড বোটসহ প্রয়োজনীয় যানবাহনের জন্য আবেদন করা হয়েছে। তিনি আরো জানান, নদীপথে সংঘটিত সব ধরনের অপরাধ প্রতিহত করতে নৌ পুলিশ বদ্ধ পরিকর।

এদিকে কার্যক্রম শুরুর প্রথম দিনই নৌপুলিশের সদস্যরা চর খিদিরপুর এলাকায় পদ্মা নদীতে বুধবার রাতে অভিযান চালিয়েছে। এসময় ১ লাখ ৯ হাজার টাকার অবৈধ জাল জব্দ করে নিয়ম অনুসারে জালগুলো পুড়িয়ে নষ্ট করা হয়। এসময় অভিযানে নেতৃত্ব দেন পবা নৌ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মেহেদী মাসুদ। এসময় উপস্থিত ছিরেন পবা উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আবু বক্কর সিদ্দিক।