।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) থেকে স্পষ্ট বলে দেওয়া ছিলো, ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের আগে কোন ক্রিকেটারের পরিবার তাদের সাথে থাকতে বা দেখা করতে পারবেন না। মূলত বড় টুর্নামেন্টে ও বড় ম্যাচের আগে ক্রিকেটারদের মানসিকভাবে শক্ত থাকার জন্যই এমন নিয়ম বেঁধে দেয় বোর্ড। কিন্তু এরপরও কেনো পরিবার সঙ্গে থাকবে এমন প্রশ্ন করে বসেন পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার ও ব্যাটিং কিংবদন্তি মোহাম্মদ ইউসুফ।

বিশ্বকাপের মতো বড় টুর্নামেন্টে বিদেশের মাটিতে পরিবার পাঠানোর কোনো কারণ দেখেন না ইউসুফ। উল্টো এ বিষয়ে অনুমতি দেওয়ায় ক্ষেপেছেন এ সাবেক ক্রিকেটার।

ইউসুফ বলেন, পাকিস্তানের হয়ে ১৯৯৯, ২০০৩, এবং ২০০৭ বিশ্বকাপের সদস্য ছিলাম আমি। কিন্তু টুর্নামেন্ট চলাকালে আমাদের পরিবারকে সঙ্গে নিয়ে যাওয়ার অনুমতি দেয়নি ক্রিকেট বোর্ড। ১৯৯৯ সালে আমরা খুব শক্তিশালী দল ছিলাম, দলে অনেক বড় বড় নাম ছিলো। তখন যদি আমরা স্ত্রী ও সন্তানের সঙ্গ চাইতাম তাহলে বোর্ড আমাদের মানা করতো না। কিন্তু আমরা তা চাইনি। কারণ বিশ্বকাপ একটি বড় চাপের টুর্নামেন্ট এবং ফাইনালের আগে পর্যন্ত ক্রিকেটারদের ক্রিকেটেই ফোকাস রাখা প্রয়োজন। যা সেই ৯৯ সালে ইংল্যান্ডে হয়েছে।

পাকিস্তানের হয়ে ২৮৭টি ওয়ানডে খেলে ৪১.৮৮ গড়ে ৯৭১৭ রান করেন ইউসুফ। এছাড়া তিনটি বিশ্বকাপ খেলে ৩২.১৭ গড়ে ৩৮৬ রান আছে সাবেক এই ব্যাটসম্যানের।

তিনি আরও বলেন, আমার মনে আছে, আমরা শুধু টেস্ট ম্যাচের সময়েই পরিবারকে সঙ্গে রাখতে পারতাম। তখন এটা দরকারও ছিল। কেননা একটা শহরে আমাদের এক সপ্তাহের মতো থাকতে হতো। পরিবারের সঙ্গ থাকাটা যদি খেলোয়াড়দের এত জরুরীই ছিল তাহলে তাদেরকে টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই পাঠাতে পারত। এমন শেষ সময়ে পাঠানোর কোন দরকার ছিল না।

চলতি বিশ্বকাপে চার ম্যাচের তিনটিতেই হেরেছে পাকিস্তান। সামনে আছে ভারতের মতো শক্তিশালী দলের বিপক্ষে ম্যাচ।