।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় শাশুড়িতে ছুরিকাঘাতে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে এক পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে। শুক্রবার ভোররাতে এই হত্যাকাণ্ডের পর অসীম কুমার ভট্টাচার্য নামে ওই পুলিশ সদস্য পলাতক। তিনি চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশের সিআইডি বিভাগে কনস্টেবল হিসেবে কর্মরত।

নিহতের নাম শেফালী অধিকারী (৪৮)। তার মেয়ে ফাল্গুনী অধিকারী, ছেলে আনন্দ অধিকারী ও স্বামী সদানন্দ অধিকারী ছুরিকাঘাতে আহত হয়েছেন। তারা কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। পারিবারিক কলহের জের ধরে এই হত্যাকাণ্ড ঘটে বলে আলমডাঙ্গা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ মাহবুবুর রহমান জানিয়েছেন।

কনস্টেবল অসীম স্ত্রী ফাল্গুনীকে নিয়ে আলমডাঙ্গা উপজেলা শহরের কলেজপাড়ার ভাড়াবাড়িতে থাকতেন। পাশের মহল্লা মাদরাসাপাড়ায় থাকে ফাল্গুনীর পরিবার।

পুলিশ কর্মকর্তা মাহবুব বলেন, পারিবারিক কলহের কারণে গত রাতে ফাল্গুনি বাবার বাড়ি চলে গিয়েছিলেন। রাত ২টার দিকে অসীম শ্বশুর বাড়ি গিয়ে স্ত্রীকে ডাকাডাকি শুরু করে।

স্ত্রী ফাল্গুনী দরজা খুললে অসীম অতর্কিতে তাকে ছুরিকাঘাত করে। এসময় শ্বশুর, শাশুড়ি ও শ্যালক ছুটে এলে তাদেরও ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায় অসীম। ছুরিকাঘাতে শেফালী ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান। অন্যদের হাসপাতালে পাঠায় প্রতিবেশীরা।

স্থানীয়দের কাছে খবর পেয়ে পুলিশ রাতেই লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। পলাতক কনস্টেবলকে গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে বলে জানান পরিদর্শক মাহবুব।