।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

ঈদের ছুটি শুরু হওয়ার আগেই এটিএম (অটোমেটেড টেলার মেশিন) বুথে টাকা তুলতে গিয়ে ভোগান্তিতে পড়ছেন গ্রাহকরা। গত রোববার (২ জুন) ব্যাংকগুলোর এটিএম বুথে নগদ টাকার প্রবাহ কম থাকায় গ্রাহকরা চাহিদা অনুযায়ী টাকা তুলতে পারেননি। আজ সোমবারও একই অবস্থা দেখা যায়। এদিন টাকা না থাকায় বেশকিছু এটিএম বুথ বন্ধ রাখার মতো ঘটনাও ঘটেছে। সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ঢাকার মানিকনগরের ইসলামী ব্যাংকের সেবা ঘর (এটিএম বুথ) বন্ধ দেখা যায়। এ সময় বুথটির ভেতরে কর্মকর্তারা থাকলেও কলাপসিবল গেট বন্ধ করে রাখা হয়। বুথটির নিরাপত্তাকর্মী জানান, বুথে সমস্যা হয়েছে। টাকা না থাকার কারণে বুথ আপাতত বন্ধ রাখা হয়েছে।

ঈদের আগে শেষ ব্যাংকিং লেনদেন হচ্ছে সোমবার। এদিন পূর্ণ দিবস ব্যাংক খোলা থাকবে। অর্থাৎ সকাল সাড়ে ৯টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত লেনদেন হবে। বাংলাদেশ ব্যাংকের ক্লিয়ারিং হাউসও আজ খোলা। ঢাকার বিভিন্ন স্থানে এটিএম বুথে নেটওয়ার্ক সমস্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। দু-একটি ব্যাংকের বুথে অবশ্য নেটওয়ার্ক সমস্যার কথা ‘গ্রাহকের অবগতির স্বার্থে’ ব্যাংক কর্তৃপক্ষই সাদা কাগজে লিখে রেখেছে। এছাড়া বিভিন্ন জায়গায় অবস্থিত বেশকিছু ব্যাংকের এটিএম বুথ থেকে টাকা না পাওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এমন অবস্থায় ঈদের ছুটিতে এটিএম বুথের সার্বক্ষণিক সেবা পাওয়া নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করছেন অনেকেই।

আগামীকাল মঙ্গলবার থেকে টানা পাঁচ দিন বন্ধ থাকবে ব্যাংক। এ সময় কেবল এটিএম বুথ ও মোবাইল ব্যাংকিং চালু থাকবে।

প্রসঙ্গত, ৪ জুন মঙ্গলবার (২৯ রমজান) থেকে ৬ জুন বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ঈদুল ফিতরের তিন দিনের ছুটি। এরপর ৭ ও ৮ জুন শুক্র ও শনিবার সাপ্তাহিক ছুটি। এদিকে ঈদের ছুটিতে সব বাণিজ্যিক ব্যাংকের এটিএম বুথে পর্যাপ্ত টাকা রাখার নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। পাশাপাশি পয়েন্ট অব সেল (পিওএস), ই-পেমেন্ট গেটওয়ে, মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসের (এমএফএস) মাধ্যমে নিরবচ্ছিন্ন লেনদেনের ক্ষেত্রে বেশ কিছু নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৩ মে) বাংলাদেশ ব্যাংকের পেমেন্ট সিস্টেমস ডিপার্টমেন্ট এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করে।

দেশের সব বাণিজ্যিক ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, এটিএম, পিওএস, ই-পেমেন্ট গেটওয়ে, এমএফএস-এর মাধ্যমে গ্রাহকরা যাতে নিরবচ্ছিন্ন লেনদেন করতে পারেন তা নিশ্চিত করতে হবে। একই সঙ্গে ব্যাংকের পরিচালিত সিস্টেমগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিতসহ সার্বিক ঝুঁকি মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। নির্দেশনায় এটিএম সেবা সম্পর্কে বলা হয়েছে, সার্বক্ষণিক এটিএম সেবা চালু থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। পর্যাপ্ত টাকা রাখতে হবে এবং সার্বক্ষণিক পাহারা রাখতে হবে।

এ প্রসঙ্গে পূবালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবদুল হালিম চৌধুরী বলেন, ঈদের কেনাকাটার কারণে এখন হয়তো টাকা উঠানোর চাপ বেশি। এ কারণে কিছু সমস্যা হলেও হতে পারে। তবে পূবালী ব্যাংকের বুথে কোনও সমস্যা এখনও শুনিনি।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, এটিএম বুথে পর্যাপ্ত টাকা রাখার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে ব্যাংকগুলোকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেয়া আছে। এখন কিছু বুথে নেটওয়ার্কের সমস্যার কথা শুনেছি। এই সমস্যা দ্রুত সমাধান করার জন্য বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।