Loading...
উত্তরকাল > Blog > অর্থনীতি > এটিএম বুথে বিদেশিদের ব্যাপারে রেড অ্যালার্ট জারি

এটিএম বুথে বিদেশিদের ব্যাপারে রেড অ্যালার্ট জারি

পড়তে পারবেন 2 মিনিটে

।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

যেকোনো বিদেশি নাগরিক এটিএম (অটোমেটেড টেলার মেশিন) বুথে ঢুকলে তার ওপর কড়া নজর রাখার পাশাপাশি সর্বোচ্চ সতর্ক (রেড অ্যালার্ট) থাকার জন্য এটিএম বুথের নিরাপত্তাকর্মীদের বিশেষ নির্দেশনা দিয়েছে ব্যাংকগুলো। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সাইবার নিরাপত্তা নিয়ে সতর্কতা জারির পর ব্যাংকগুলো এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এ প্রসঙ্গে পূবালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবদুল হালিম চৌধুরী বলেন, আমরা ভয়ে আছি বিদেশিদের নিয়ে। যারা কিনা আমাদের এটিএম বুথে ঢুকে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। এ কারণে আমরা সবাই এখন এটিএম বুথে বিদেশিদের লেনদেনের ক্ষেত্রে সতর্কতা জারি করেছি। যেকোনও বিদেশি নাগরিক এটিএম বুথে ঢুকলে তার ওপর নজর রাখার জন্য নিরাপত্তাকর্মীদের বিশেষ নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, বিদেশিরা কেন ব্যাংকের এটিএম বুথে প্রবেশ করবে। মুখে মাস্ক, মাথায় ক্যাপ-টুপি ও চশমাওয়ালা বিদেশিদের ব্যাপারে আমরা সর্তক থাকতে বলেছি। এটিএম বুথে লেনদেন ডিজিটাল পদ্ধতিতে হলেও নিরাপত্তা দিতে হচ্ছে ডিজিটালের সঙ্গে ফিজিক্যাল সিস্টেমে। একই সঙ্গে আমরা প্রযুক্তিগত নিরাপত্তা বাড়াতে যতটা সম্ভব চেষ্টা করছি।

এর আগে ব্যাংকের সাইবার নিরাপত্তা নিয়ে সতর্কতা জারি করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। কেন্দ্রীয় ব্যাংক বলছে, ঈদুল ফিতরের ছুটিতে ব্যাংকের সব ব্যবসা কেন্দ্রসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাগুলোতে সাইবার নিরাপত্তাসহ সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। বৃহস্পতিবার (৩০ মে) এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার ব্যাংকগুলোর প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, ঈদের সময় ব্যাংক বন্ধ থাকে। এই বন্ধের সময় যাতে দুষ্টচক্র কোনও ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটায় সেজন্য ব্যাংকগুলোকে সাইবার নিরাপত্তাসহ সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের নিদের্শনায় বলা হয়েছে, ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ঘোষিত ছুটির দিনে ব্যাংকের সব ব্যবসা কেন্দ্রসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনায় সাইবার নিরাপত্তাসহ সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য আপনাদের বিশেষভাবে নির্দেশনা দেয়া যাচ্ছে।

বাংলাদেশ ব্যাংক বলছে, ছুটির দিনসহ ব্যাংকের দৈনন্দিন কার্যক্রম শেষ হওয়ার পর রাতে হঠাৎ করে কর্মকর্তাদের শাখা পরিদর্শন করার ব্যবস্থা করতে হবে। ছুটির দিনগুলোতে ব্যাংকের আইটি সিস্টেম, বিভিন্ন স্থাপনা ও ভল্টের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে শাখার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের মাধ্যমে পালাক্রমে তদারকির ব্যবস্থা নিতে হবে। এছাড়া ব্যাংকের সব ব্যবসা কেন্দ্রসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার কাছাকাছি থানা অর্থাৎ পুলিশ স্টেশন, র‌্যাব অফিস ও অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষা করতে হবে। বাংলাদেশ ডিজিটালাইজেশন যুগে প্রবেশ করায় অন্যান্য প্রযুক্তির পাশাপাশি আইসিটি প্রযুক্তি ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য উন্নতি হয়েছে। প্রযুক্তির উন্নতির এ ধারায় বাংলাদেশের ব্যাংকিং সেক্টরে যথেষ্ট অগ্রগতি হলেও সংশ্লিষ্ট ঝুঁকি ক্রমান্বয়ে জটিল আকার ধারণ করছে। ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর আইটি সম্পৃক্ত ঝুঁকি আরও কার্যকর ও ফলপ্রসূভাবে মোকাবিলায় বাংলাদেশ ব্যাংকের গাইডলাইন যথাযথভাবে মেনে চলতে ব্যাংকগুলোকে বলা হয়েছে।

সবশেষ আপডেট

উত্তরকাল

বিশ্বকে জানুন বাংলায়

All original content on these pages is fingerprinted and certified by Digiprove
%d bloggers like this: