।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে বিশ্ব ঐতিহ্য এলাকা (ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট) সুন্দরবনে সর্বোচ্চ সতর্কতা ‘রেড অ্যালার্ট’ জারি করেছে বন বিভাগ। সুন্দরবনের বন্যপ্রাণীসহ প্রাণ-প্রকৃতি রক্ষা এবং ইকো-ট্যুরিস্টদের ঢল সামাল দিতে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। রেড অ্যালার্ট ঈদের সরকারি ছুটির শেষ দিন পর্যন্ত বহাল থাকবে। এছাড়া সুন্দরবনের সব কর্মকর্তা ও বনরক্ষীদের ঈদের ছুটি সীমিত করা হয়েছে।

সুন্দরবন পূর্ব বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) মো. মাহমুদুল হাসান রোববার (২ জুন) বিকেলে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, দেশের সমগ্র বনাঞ্চলের অর্ধেকের বেশি সুন্দরবন। বিশ্ব ঐতিহ্য এলাকা সংরক্ষিত সুন্দরবন প্রাণ-প্রকৃতির আধার। এই বনে সুন্দরী, গেওয়া, গরান, পশুরসহ ৩৩৪ প্রজাতির উদ্ভিদসহ রয়েল বেঙ্গল টাইগার, চিত্রল ও মায়াবী হরিণ, কিং-কোবরাসহ প্রায় ১০০ প্রজাতির স্তন্যপায়ী এবং সরীসৃপ, ৮ প্রজাতির উভচরসহ ৩২০ প্রজাতির বন্যপ্রাণীর বসবাস। নদীতে রয়েছে বিশ্বের বিলুপ্তপ্রায় প্রজাতির ইরাবতীসহ ৬ প্রজাতির ডলফিন, লবণ পানির কুমির। মৎস্য ভান্ডার হিসেবে খ্যাত সুন্দরবনের নদ-নদী ও খালে রয়েছে রুপালি ইলিশ, বিভিন্ন প্রজাতির চিংড়িসহ মিঠা ও লবণ পানির ৪০০ প্রজাতির মাছ। এসবের সুরক্ষায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

সুন্দরবনে চোরা শিকারি প্রবেশ, বন্যপ্রাণী পাচার রোধে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।