।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

যুক্তরাজ্যের সর্ববৃহৎ মাইক্রোচিপ ডিজাইন প্রতিষ্ঠান এআরএম হুয়াওয়ের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সব ধরনের কাজ বন্ধ করে দিয়েছে। প্রতিষ্ঠানের এক অভ্যন্তরীণ মেমোতে এআরএম তার সব কর্মীকে হুয়াওয়ের সঙ্গে চুক্তিসংশ্লিষ্ট সকল কাজ, সমর্থন এবং চলমান সকল সংশ্লিষ্টতা বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র হুয়াওয়েকে তাদের এনটিটি লিস্টের অন্তর্ভূক্ত করে। এর ফলে যে কোনো মার্কিন প্রযুক্তি ব্যবহারের বেলায় কেবল কোনো মার্কিন প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে প্রযুক্তি কেনা বা লাইনেন্স করাই যথেষ্ট হবে না, এজন্য মার্কিন সরকারেরও অনুমাদন লাগবে। বস্তুত ওই সিদ্ধান্তের মাধ্যমে হুয়াওয়ের ওপর থেকে সকল মার্কিন প্রযুক্তিগত সংশ্লিষ্টতা তুলে নেয় ট্রাম্প প্রশাসন।

এআরএম তাদের সিদ্ধান্তের কারণ হিসেবে মেমোতে বলেছে- এআরএম-এর ডিজাইনে মার্কিন প্রযুক্তি রয়েছে এবং তারা সাম্প্রতিক মার্কিন সিদ্ধান্ত মেনে চলছে।

হুয়াওয়ে তাদের মোবাইল ফোনের জন্য মাইক্রোচিপ তৈরি করতো চীনে তাদের নিজেদের প্রতিষ্ঠান হাইসিলিকন সেমিন্ডাক্টর থেকে। এখান থেকে সর্বশেষ মডেলের কিরিন প্রসেসর তৈরি করতো তারা। এই কিরিন প্রসেসরের ডিজাইন আর্কিটেকচার তৈরি হয়েছে এআরএম হোল্ডিংসের মাধ্যমে। এর ফলে, হুয়াওয়ে ফোনে কিরিন প্রসেসরের ব্যবহারও এখন প্রশ্নের সম্মুখীন।

হুয়াওয়ের সাম্প্রতিক প্রায় সবকয়টি ফ্ল্যাগশিপ ফোনেই ব্যবহার করা হয়েছে কিরিন প্রসেসর।

বিশ্লেষকরা বলছেন, মার্কিন সিদ্ধান্তের ফল দীর্ঘমেয়াদে হুয়াওয়ের জন্য ভয়াবহ হবে। এর ফলে হুয়াওয়ের পক্ষে নিজের জন্য মাইক্রোচিপ তৈরি করা প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়বে।

হুয়াওয়ের এক মুখপাত্র বলেছেন, এ বিষয়ে এখনই তিনি কোনো মন্তব্য করবেন না।