Zee5 Contract Coming Soon

।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। বুধবার (২২ মে) সকাল ৯টা থেকে কমলাপুর রেলস্টেশনসহ রাজধানীর পাঁচটি স্টেশন থেকে সারাদেশের বিভিন্ন রুটের ট্রেনের টিকিট বিক্রি শুরু হয়। প্রথম দিন দেওয়া হয়েছে ৩১ মে’র ট্রেনের টিকিট।

রাজধানীর কমলাপুর রেলস্টেশনে গিয়ে দেখা যায়, অগ্রিম টিকিট পেতে সেখানে যাত্রীদের উপচে পড়া ভিড়। সকাল থেকেই স্টেশনের ২৩টি কাউন্টার থেকে টিকিট দেওয়া হচ্ছে।

জানা গেছে, এবার একজন যাত্রী একসঙ্গে সর্বোচ্চ চারটি টিকিট কিনতে পারবেন। এজন্য অবশ্যই জাতীয় পরিচয়পত্র লাগবে। এবারই রেলের ৫০ শতাংশ টিকিট অ্যাপের মধ্যে বিক্রি করা হচ্ছে।

এদিকে টিকিট বিক্রির সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে রেলওয়ে। এতে যেকোনও ধরনের বিশৃঙ্খলা ও অনিয়ম ঠেকাতে মাঠে নেমেছে মনিটরিং টিম ও রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনী। পাশাপাশি রয়েছে পুলিশ ও আনসার সদস্যরা।

রেলওয়ের কমলাপুর স্টেশন ম্যানেজার সিতাংশু চক্রবর্তি জানান, সকাল ৯টা থেকে তারা ট্রেনের অগ্রিম টিকিট দেওয়া শুরু করেছেন। কোনও ধরনের বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়নি।

এদিকে দুর্ভোগ কমাতে এ বছরই প্রথমবারের মতো রাজধানীর পাঁচ স্থানে বিক্রি করা হচ্ছে ঈদের অগ্রিম টিকিট। ওই পাঁচ জায়গায় পর্যাপ্ত বুথ ও সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। ফলে ঘরমুখো মানুষ কিছুটা স্বাচ্ছন্দ্যে হলেও টিকিট কিনতে পারবেন বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এই পাঁচটি স্টেশনের মধ্যে কমলাপুর স্টেশন থেকে থেকে যমুনা সেতু হয়ে পশ্চিমাঞ্চলগামী সবকটি ট্রেনের টিকিট বিক্রি করা হবে। বিমানবন্দর স্টেশন থেকে দেওয়া হবে চট্টগ্রাম ও নোয়াখালীগামী সব আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট। তেজগাঁও স্টেশন থেকে ময়মনসিংহ ও জামালপুরগামী সব আন্তঃনগর ট্রেন, বনানী স্টেশন থেকে নেত্রকোনাগামী মোহনগঞ্জ ও হাওড় এক্সপ্রেস ট্রেন এবং ফুলবাড়িয়া (পুরাতন রেলভবন) থেকে সিলেট ও কিশোরগঞ্জগামী সব আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট দেওয়া হবে। বুধবার প্রথম দিনে দেওয়া হচ্ছে ৩১ মে’র টিকিট, বৃহস্পতিবার দেওয়া হবে ১ জুনের, শুক্রবার দেওয়া হবে ২ জুনের, শনিবার দেওয়া হবে ৩ জুনের এবং ২৬ মে ৪ জুনের টিকিট দেওয়া হবে।

অন্যদিকে ফেরত যাত্রীদের জন্য ২৯ মে দেওয়া হবে ৭ জুনের টিকিট, একইভাবে ৩০ ও ৩১ মে এবং ১ ও ২ জুন দেওয়া হবে যথাক্রমে ৮, ৯, ১০ ও ১১ জুনের টিকিট।

রেল সূত্রে জানা গেছে, প্রতিদিন ৭০ থেকে ৭২ হাজার টিকিট বিক্রি করবে বাংলাদেশ রেলওয়ে। সেই হিসেবে ঈদের পাঁচ দিনে তিন লাখ ৫০ হাজার যাত্রীকে সেবা দেবে রেলওয়ে। ৯৬টি আন্তঃনগর ট্রেনের পাশাপাশি আট জোড়া বিশেষ ট্রেনও নামবে। ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জ-ঢাকা রুটে দেওয়ানগঞ্জ ঈদ স্পেশাল (এক জোড়া), চট্টগ্রাম-চাঁদপুর-চট্টগ্রাম রুটে চাঁদপুর ঈদ স্পেশাল (দুই জোড়া), খুলনা-ঢাকা-খুলনা রুটে মৈত্রীর রেক দিয়ে খুলনা ঈদ স্পেশাল, ঢাকা-ঈশ্বরদী-ঢাকা রুটে ঈশ্বরদী ঈদ স্পেশাল, লালমনিরহাট-ঢাকা-লালমনিরহাট রুটে লালমনি ঈদ স্পেশাল, ভৈরববাজার-কিশোরগঞ্জ-ভৈরববাজার রুটে শোলাকিয়া স্পেশাল-১ এবং ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ-ময়মনসিংহ রুটে শোলাকিয়া স্পেশাল-২ চলবে। এর মধ্যে শোলাকিয়া স্পেশালগুলো ঈদের দিন সেবা দেবে।

Digiprove sealCopyright protected by Digiprove © 2019
Acknowledgements: বাংলা ট্রিবিউন
All Rights Reserved