Loading...
উত্তরকাল > Content page > সব খবর > ট্রেনের বগি সংকটে ভুগছে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে, মিলছে না কাঙ্ক্ষিত সেবা

ট্রেনের বগি সংকটে ভুগছে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে, মিলছে না কাঙ্ক্ষিত সেবা

পড়তে পারবেন 2 মিনিটে

।। রাজু আহমেদ, রাজশাহী ।।

রাজশাহী-ঢাকা রুটে পদ্মা, ধুমকেতু ও সিল্কসিটি এক্সপ্রেস ট্রেন নিয়মিত যাতায়াত করে। ট্রেন তিনটিতে প্রতিদিন হাজারো যাত্রী ভ্রমণ করছে। তবে রেল কর্তৃপক্ষ যাত্রীদের চাহিদা মাফিক টিকিট সরবরাহ করতে পারছে না। ফলে এসব ট্রেনে যাত্রী সিটে বসে যারা যাতায়াত করেন তাদের আসনের প্রায় সমপরিমাণ যাত্রী দাঁড়িয়ে ভ্রমণ করতে বাধ্য হচ্ছেন।

প্রতিটি ট্রেন ১২ থেকে ১৫টি বগি নিয়ে চলাচল করলেও ইঞ্জিনগুলোর বগি বহনের ক্ষমতা ১৮টি। রাজশাহী রুটে নিয়মিত চলাচল করা প্রায় ৯০টি ট্রেনের একই অবস্থা।

যাত্রীদের অভিযোগ, পর্যাপ্ত বগি না থাকায় রেল কর্তৃপক্ষ চাহিদা যেমন পূরণ করতে পারছে না, তেমনি কাঙ্ক্ষিত সেবা নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হচ্ছে। তবে পশ্চিমাঞ্চল রেল কর্তৃপক্ষের দাবি, নিরাপদ যাত্রার পাশাপাশি রেলের সেবার মান আগের চাইতে বৃদ্ধি পাওয়ায় রেল ভ্রমণে দিন দিন চাহিদা বাড়ছে । বর্তমানে যেসব সংকট বিদ্যমান আছে তা কাটিয়ে উঠতে সরকার এরই মধ্যে কার্যকর ও টেকসই কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে। তা বাস্তবায়ন হলে এর সুফল যাত্রীরা খুব শিগগির ভোগ করবে।

রাজশাহী রুটে প্রতিদিন ১০ থেকে ১২ হাজার যাত্রী যাতায়াত করে। এর বাইরে প্রায় ৫ হাজার যাত্রীকে টিকিট দিতে ব্যর্থ হচ্ছে রেল কর্তৃপক্ষ। অনেকে বিনা টিকেটে দাঁড়িয়েই ভ্রমণ করেন।

পশ্চিমাঞ্চল রেল বিভাগের দেয়া তথ্যমতে, ঢাকা, খুলনা, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নওগাঁর পাশাপাশি ঈশ্বরদী, জয়পুরহাঁট, নাটোর, চিলাহাটি, পার্বতীপুর, কুষ্টিয়া, পঞ্চগড়, বগুড়া, টুঙ্গিপাড়াসহ আশপাশের বিভিন্ন জেলা সমূহে প্রায় ৯০টির মতো ট্রেন প্রতিদিন যাতায়াত করছে। আর এ সকল ট্রেন ধারণ ক্ষমতার চাইতে তিন থেকে চারটি বগি কম নিয়ে যাতায়াত করছে। পর্যাপ্ত বগি না থাকায় ট্রেনগুলোতে নির্দিষ্ট সংখ্যক বগি দেয়া সম্ভব হচ্ছে না।

পশ্চিমাঞ্চল রেল বিভাগের চিফ কমার্শিয়াল ম্যানেজার এ এম এম শাহনেওয়াজ জানান, শুধু উত্তরাঞ্চলেই না বাংলাদেশ রেলের চাহিদা সারাদেশেই বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে প্রতিটি রুটেই যাত্রীদের চাপ বাড়ছে। এটি আমাদের জন্য ভালো খবর।

তিনি জানান, এই রুটে চলাচল করা প্রতিটি টেনে পর্যাপ্ত বগি নিশ্চিত করতে পারলে যাত্রীদের শতভাগ চাহিদা পূরণ সম্ভব। আর সরকার এ লক্ষ্যে কাজ করছে।

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক খোন্দকার শহিদুল ইসলাম বলেন, এখন পর্যন্ত নিরাপদ যান হিসেবে সবাই রেলকেই চেনে। আর তাই দেশের সকল রুটে রেলের চাহিদা প্রতিদিন বাড়ছে। চাহিদা বৃদ্ধির কারণে এই সাময়িক সংকট দেখা দিয়েছে। সরকার বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছে। আর তাই বিদেশ থেকে নতুন নতুন কোচ ও ইঞ্জিন আমদানি করা হচ্ছে। এরই মধ্যে ইন্দোনেশিয়া থেকে আসা কোচ দিয়ে আমরা রাজশাহী-ঢাকা রুটে নতুন একটি বিরতিহীন ট্রেন চালু করতে পেরেছি।

সবশেষ আপডেট

উত্তরকাল

বিশ্বকে জানুন বাংলায়

Follow US

All original content on these pages is fingerprinted and certified by Digiprove
%d bloggers like this: