।। নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী ।।

রাজশাহীতে সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন শুরু করেছে রাজশাহী জুটমিলের শ্রমিকরা। পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী বকেয়া বেতন-ভাতা আদায় ও মজুরি কমিশন বাস্তবায়নসহ ৯ দফা দাবিতে পাটকল শ্রমিক লীগের ব্যানারে স্থানীয় শ্রমিকরা সোমবার বিকেল ৪টা থেকে কাটাখালি এলাকায় রাজশাহী-ঢাকা মহাসড়ক অবরোধ করে আন্দোলন শুরু করেছে।

উপস্থিত শ্রমিকদের ভাষ্যমতে, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাদের সড়ক অবরোধ কর্মসূচি চলবে প্রতিদিন বিকাল ৪টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত। এছাড়া তারা কাজেও যোগ দেবে না।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কাটাখালি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নিবারণ চন্দ্র জানিয়েছেন, শ্রমিকদের মহাসড়কটি ছাড়তে অনুরোধ করা হচ্ছে। সড়কের দুই প্রান্তে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

দাবি আদায়ের জন্য পূর্ব ঘোষণা অনুসারে সোমবার সকাল থেকে সারা দেশের সরকারি পাটকল শ্রমিকদের মতো এই পাটকলের শ্রমিকরাও অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতীতে যায়। এর পর বিকেল ৪টা থেকে তারা কাটাখালি শ্যামপুর এলাকার রাজশাহী-ঢাকা মহাসড়কে একত্রে নেমে এসে অবরোধ করে আন্দোলন শুরু করে।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত সড়কটি অবরোধ করে রেখে শ্রমিকরা সেখানেই অবস্থান করছে। সড়কটিতে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

রাজশাহী পাটকল শ্রমিক লীগের সভাপতি জিল্লুর রহমান এই তথ্য নিশ্চিত করে জানান, গত বুধবার (৮ মে) বাংলাদেশ পাটকল কর্পোরেশনের সিবিএ কার্যালয়ে সারা দেশের সরকারি পাটকল শ্রমিকদের নিয়ে সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সকলের সম্মতিক্রমে আন্দোলনের এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সিদ্ধান্ত অনুসারে দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত পাটকল শ্রমিকরা কাজ করবে না। এছাড়া প্রতিদিন বিকাল ৪টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন চলবে।

তিনি এই আন্দোলনের যৌক্তিকতা প্রসঙ্গে বলেন, দীর্ঘ ৫ মাস থেকে পাটকল শ্রমিকদের বেতন-ভাতা বন্ধ রয়েছে। শুরু থেকেই শান্তিপূর্ণভাবে আমাদের বকেয়া বেতন-ভাতা পরিশোধ করতে সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ জানিয়ে আসছি। এছাড়া শ্রমিকদের মজুরি কমিশন বাস্তবায়নে কালক্ষেপণ করা হচ্ছে। আমাদের দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে। এই আন্দোলন কারো বিরুদ্ধে নয়। এটি আমাদের বাঁচার লড়াই।

রাজশাহী নগর পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত ও উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর) গোলাম রুহুল কুদ্দুস বলেন, সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত তারা আন্দোলন করবে বলে জানা যাচ্ছে। আমরা তাদেরকে জনদুর্ভোগের বিষয়টা বলে সড়ক থেকে সরাবার চেষ্টা করছি।

তিনি আরো জানান, যানজট নিরসনে এরই মধ্যে ট্রাফিক বিভাগ এই রুটের যানবাহনের চালকদের বিকল্প রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে বলছে। বিকল্প সড়ক থাকায় দূর পাল্লার যান চলাচলে কোনো সমস্যা হবে না।