।। নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী ।।

দেশে এখন আগের চেয়ে অনেক বেশি উন্নয়ন হলেও মানুষে মানুষে বৈষম্য বাড়ছে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এমপি। তিনি বলেছেন, সমাজের এই বৈষম্য দূর করার দায়িত্ব রাষ্ট্রের। তা না হলে উন্নয়ন কোনো কাজে লাগবে না।

শনিবার (১১ মে) দুপুরে রাজশাহীতে ‘প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে অংশীদারিত্ব ও বাজেট ভাবনা’ বিষয়ক এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। বেসরকারি সংস্থা এএলআরডি’র সহযোগিতায় নগরের একটি হোটেলের সম্মেলন কক্ষে যৌথভাবে এ সভার আয়োজন করে জাতীয় আদিবাসী পরিষদ এবং রুলফাও। আসন্ন জাতীয় বাজেট উপলক্ষে সভার আয়োজন করা হয়।

আদিবাসী ও সংখ্যালঘু বিষয়ক সংসদীয় ককাসের সভাপতি ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, যতদিন পর্যন্ত সমতলের আদিবাসীদের জন্য আলাদা মন্ত্রণালয় না হচ্ছে, ততদিন পর্যন্ত বাজেটে সমতলের আদিবাসীরা এক টাকাও পাবেন না। কারণ, বাজেটে অর্থই বরাদ্দ করা হয় মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে। এ জন্য আমি সমতলের আদিবাসীদের জন্য আলাদা মন্ত্রণালয়ের দাবি জানাই।

রাজশাহী-২ (সদর) আসনের এই সংসদ সদস্য বলেন, পাহাড়ের আদিবাসীদের জন্য পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক একটা মন্ত্রণালয় আছে। সমতলের আদিবাসীদের জন্য মন্ত্রণালয় থাকবে না কেন? যতদিন আলাদা মন্ত্রণালয় হচ্ছে ততদিন অন্তত পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়েই সমতলের আদিবাসীদের জন্য একটা আলাদা বিভাগ খোলা হোক। তাহলেও কিছুটা বরাদ্দ পাওয়া যাবে।

বাদশা বলেন, সংবিধানেই প্রত্যেক মানুষের অধিকার নিশ্চিত করা আছে। সুতরাং বাজেট হতে হবে সেই রকম। সংবিধানের বাইরে বাজেট হলে তা প্রত্যাখ্যানের জন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। কিন্তু এই মুহুর্তে আদিবাসীরা সফলতার দ্বারপ্রান্তে এসে থমকে দাঁড়িয়েছে। তাদের আবারও ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। আদিবাসীদের ‘আদিবাসী’ হিসেইে রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি আদায় করতে হবে।

সভায় আলোচক হিসেবে আরও বক্তব্য দেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূ-তত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক চৌধুরী সরোয়ার জাহান সজল, অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ইলিয়াস হোসেন, এএলআরডি’র উপ-নির্বাহী পরিচালক রওশন জাহান মনি, জাতীয় আদিবাসী পরিষদের সভাপতি রবীন্দ্রনাথ সরেন প্রমুখ। সভাপতিত্ব করেন রুলফাও এর চেয়ারম্যান আফজাল হোসেন।