।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

ক্রিকেটাররা মাঝেমধ্যে রাগে ড্রেসিংরুম ভাঙচুর করেন। তবে এবার ভাঙচুর হলো আম্পায়ার রুম। ঘটনার নেপথ্যে কোনো ক্রিকেটার নয়, লাথি মেরে আম্পায়ার রুমের দরজা ভেঙেছেন ইংলিশ আম্পায়ার নাইজেল লং। ঘটনাটি গত ০৪ মে’র। আইপিএলে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু তাদের ঘরের মাঠ এম চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হয়েছিল সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের। ম্যাচ চলাকালীন ব্যাঙ্গালুরু বোলার উমেশ যাদবের একটি বলে ‘নো বল’ ডাকেন আম্পায়ার লং।

কিন্তু জায়ান্ট স্ক্রিনের রিপ্লেতে দেখা যায়, বলটি বৈধ ছিল। যাদবের পা লাইনের বাইরে যায়নি। আম্পায়ার লংয়ের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে কথা বলেন ব্যাঙ্গালুরু অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও যাদব। কিন্তু বৈধ হলেও নো বলের সিদ্ধান্তে অনড় থাকেন আম্পয়ার লং।

সেই নো বল থেকে হায়দ্রাবাদের স্কোরবোর্ডে যোগ হয় পাঁচ রান। অতিরিক্ত বলটিতে চার দিয়ে বসেন যাদব। অবশ্য তাতেও কোনো ক্ষতি হয়নি ব্যাঙ্গালুরুর। চার বল বাকি থাকতেই ম্যাচ জিতে কোহলির দল।

এরপরই ঘটে মূল ঘটনা। ম্যাচ শেষে আম্পায়ার রুমে ঢুকে লাথি মেরে দরজা ভাঙেন লং। অবশ্য আগে থেকে দরজাটিতে গর্ত ও ক্ষতিগ্রস্থ ছিল। তবে দরজার ওপর লাগানো গ্লাস ভাঙেনি।

আম্পয়ার লংয়ের এমন ঘটনায় ম্যাচ রেফারি ভি নারায়ণ কুট্টির সঙ্গে পরামর্শ করে কমিটি অব অ্যামিনিস্ট্রেশনের কাছে রিপোর্ট করে কর্ণাটক স্টেট ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন। দরজা মেরামত করার জন্য ক্ষতিপূরণস্বরূপ ৫০০০ রুপি জরিমানা গুণতে হয়েছে আম্পয়ার লংকে।