।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

পূর্বাঞ্চলীয় শহর কাত্তানকুডিতে ১০ একরের একটি ‘শিবির’ খুঁজে পেয়েছে শ্রীলঙ্কার পুলিশ, ইস্টার সানডের হামলার সঙ্গে জড়িতরা এখানে গুলি ছোড়া ও বোমা বানানোর প্রশিক্ষণ নিতো বলে বিশ্বাস তাদের। দেয়াল ঘেরা এই শিবিরটির অবস্থান কাত্তানকুডির নিম্নবিত্তদের আবাসিক এলাকায়, রোববারের অভিযানে এই শিবিরটির একপাশের দেয়ালে বুলেটের গর্ত পেয়েছে পুলিশ; খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

এই কাত্তানকুডিতেই ২১ এপ্রিল, ইস্টার সানডের হামলার সন্দেহভাজন প্রধান কুশীলব জাহরান হাশিমের বাড়ি। হাশিম নিজেও ওই দিনের নয় আত্মঘাতী হামলাকারীর মধ্যে ছিলেন বলে বিশ্বাস শ্রীলঙ্কার তদন্তকারীদের।

চারটি অভিজাত হোটেল ও তিনটি গির্জাসহ আটটি জায়গায় চালানো বোমা হামলায় ২৫৩ জন নিহত হন, যার দায় স্বীকার করেছে জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস) ।

কাত্তানকুডির লম্বা, বালুময় ওই শিবিরটিতে পাকা চারতলা একটি ওয়াচটাওয়ার আছে, পাশাপাশি আম গাছ, নারিকেল গাছ, মুরগির খাঁচা ও ছাগল পালার ছাউনি রয়েছে।

“তারা এই জায়গাটিকে স্বাভাবিক দেখাতে চেয়েছে। কেউ দেখতে এলে এটিকে খামার বলে মনে করবে। কিন্তু তারা এখানে সন্ত্রাসবাদের চর্চা করতো,” বলেছেন বাত্তিকালোয়ার এক ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা; গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার অনুমতি না থাকায় পরিচয় না প্রকাশ করার অনুরোধ করেছেন তিনি।

শিবিরটি থেকে অনেকগুলো লম্বা টিউবও পাওয়া গেছে। এগুলো বোমা রাখার জন্য ব্যবহার করা হতো বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ওই প্লটটির দুই ভূমিমালিককে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওই কর্মকর্তা।