।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১০৮ দশমিক ১৫ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে পাঁচ হাজার ৩৯৪ দশমিক ৯০ পয়েন্টে। এ নিয়ে গত ৩০ এপ্রিল থেকে টানা তিন কার্যদিবসে ২১৯ পয়েন্ট বাড়ল ডিএসই সূচক। এর আগে ২৪ জানুয়ারির পরে ৬১ কার্যদিবসে প্রায় ৭৭৫ পয়েন্ট কমে ডিএসই সূচক। ওইদিন ডিএসইএক্স ছিল পাঁচ হাজার ৯৫০ পয়েন্ট।

সর্বশেষ গত ২৯ এপ্রিল সূচক প্রায় ৮০০ পয়েন্ট কমে হয় পাঁচ হাজার ১৭৫ পয়েন্টে অবস্থান করছিল। এ বিষয়ে ডিএসই ব্রোকারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ডিবিএ) সভাপতি শাকিল রিজভী বলেন, “বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) কিছু বলিষ্ঠ পদক্ষেপ, প্রধানমন্ত্রী এবং অর্থমন্ত্রীর আস্থা ফেরানোর মতো কথায় ঘুরে গেছে পুঁজিবাজার।” 

ডিএসইএক্স বা প্রধান মূল্য সূচক ১০৮ দশমিক ১৫ পয়েন্ট বেড়ে পাঁচ হাজার ৩৯৪ দশমিক ৯০ পয়েন্টে অবস্থান করছে। ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ১৫ দশমিক ৬৩ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে এক হাজার ২৪০ পয়েন্টে। আর ডিএস৩০ ৩১ দশমিক ০৮ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১ হাজার ৯০১ পয়েন্টে।

রোববার প্রধান বাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ৫৩৯ কোটি ৪৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। বৃহস্পতিবারের তুলনায় লেনদেন বেড়েছে ৬০ কোটি ৬৬ লাখ টাকা।

বৃহস্পতিবার ডিএসইতে লেনদেন ছিল ৪৭৫ কোটি ২৯ লাখ টাকা। ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নিয়েছে ৩৪৫টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড। এর মধ্যে দর বেড়েছে ২৯২টির, কমেছে ৩৮টির। আর অপরিবর্তিত রয়েছে ১৫টি কোম্পানির শেয়ার দর।

চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) প্রধান সূচক সিএসপিআই ৩৪৯ দশমিক ৪৫ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১৬ হাজার ৫১০ দশমিক ২৩ পয়েন্টে। অন্যদিকে সিএসইতে ২৮ কোটি ৩১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এই লেনদেন বৃহস্পতিবারের তুলনায় ছয় কোটি ৪০ লাখ টাকা বেশি।

এই পুঁজিবাজারে লেনদেন হয়েছে ২৫৯টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড। এর মধ্যে দর বেড়েছে ২১৭টির, কমেছে ৩২টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১০টির দর।