।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

ভারতের পূর্ব উপকূলে অবস্থিত রাজ্য উড়িষ্যায় আঘাত হেনেছে অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ‘ফণি’। ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডবে রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় গাছ উপড়ে গেছে। ভেঙে গেছে মানুষের ঘরবাড়ি, দোকানপাটসহ বিভিন্ন স্থাপনা। পানিতে ভেসে গেছে গ্রামের পর গ্রাম। ফণীতাণ্ডব উড়িষ্যায় এ পর্যন্ত ছয়জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এ সংখ্যা আরও বাড়ার আশঙ্কা করছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো।

শুক্রবার (০৩ মে) সকাল ৮টা ৫০ মিনিটের দিকে ১৯৫ কিলোমিটার বেগে রাজ্যের গোপালপুর ও পুরীতে আছড়ে পড়ে ফণি। তবে আবহাওয়ার পূর্বাভাস বলছে, বিকেল ৩ টার পর উড়িষ্যা উপকূলে আছড়ে পড়বে ফণি । তবে এর আগেই আঘাত হেনেছে প্রবল ঘূর্ণিঝড়টি। ঝড়ের দাপটে রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় গাছ-পালা উপড়ে পড়েছে। বিদ্যৎহীন হয়ে গেছে রাজ্যের বিভিন্ন অঞ্চল। উপকূলবর্তী বহু গ্রামে পানি ঢুকে পড়েছে। অনেকের ঘরবাড়িও ভেঙে গেছে।

ঝড়ে পুরীর সাক্ষীগোপালে গাছ পড়ে একজনের মৃত্যু হয়েছে। আর রাজ্যের কেন্দ্রাপাড়ায় ঝড়ের সময় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে এক বৃদ্ধা মারা যান। এছাড়া বিভিন্ন এলাকায় ঝড়ে আরও চারজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। স্থানীয় কর্তৃপক্ষ বলছে, ফণির গতিপথে উড়িষ্যার প্রায় ১০ হাজার গ্রাম এবং ৫২টি শহর পড়বে। এসব অঞ্চেলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা করা হচ্ছে।

এর আগে প্রায় ১১ লাখ মানুষকে নিরাপদে সরিয়ে নেয় রাজ্য সরকার। তাদের প্রয়োজনীয় খাবারসহ দুর্যোগকালীন সেবা দেয়া হচ্ছে। উড়িষ্যা পুলিশের একজন কর্মকর্তা বলেন, বিপর্যয় মোকাবিলার জন্য ৪ হাজার ৮৫২ সাইক্লোন এবং বন্যা আশ্রয় কেন্দ্র গড়ে তোলা হয়েছে। আপাতত ওই ১১ লাখ মানুষের ঠাঁই এই আশ্রয়গুলোতেই।