Zee5 Contract Coming Soon

।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

যুক্তরাজ্যে জামিনের শর্ত ভঙ্গের দায়ে উইকিলিকস প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জকে ৫০ সপ্তাহের কারাদণ্ড দিয়েছে লন্ডনের একটি আদালত। এর আগে অভিযোগের শুনানিতে সাউথার্ক ক্রাউন আদালতের বিচারক জানিয়েছিলেন ৪৭ বছর বয়সী অ্যাসাঞ্জ জামিন শর্ত ভঙ্গ করে সর্বোচ্চ শাস্তির যোগ্য অপরাধ করেছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, দণ্ড ঘোষণার আগে অ্যাসাঞ্জের লেখা একটি চিঠি আদালতে পড়ে শোনানো হয়।

 সুইডেনে দুই নারী ধর্ষণের অভিযোগ ওঠার পর যুক্তরাজ্যের আদালত থেকে ২০১২ সালে জামিন পান অ্যাসাঞ্জ। তবে সুইডেনে প্রত্যর্পণ করা হলে তাকে যুক্তরাষ্ট্রের হাতে তুলে দেওয়া হবে এমন আশঙ্কায় ওই বছরের জুন থেকে লন্ডনের ইকুয়েডর দূতাবাসে রাজনৈতিক আশ্রয় নেন উইকিলিকস প্রতিষ্ঠাতা। ৪ এপ্রিল (বৃহস্পতিবার) উইকিলিকসের টুইটে বলা হয়, ইকুয়েডর সরকারের উচ্চ পর্যায়ের দুইটি সূত্র থেকে তারা নিশ্চিত হয়েছে যে কয়েক ঘণ্টা থেকে কয়েক দিনের মধ্যে অ্যাসাঞ্জকে দূতাবাস থেকে তাড়ানো হতে পারে। সেই ধারাবাহিকতায় রাজনৈতিক আশ্রয় প্রত্যাহার করে বৃহস্পতিবার তাকে ব্রিটিশ পুলিশের হাতে তুলে দেয় ইকুয়েডর। গ্রেফতারের পর অ্যাসাঞ্জকে লন্ডনের ওয়েস্ট মিনিস্টার ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হলে তাকে জামিনের শর্ত ভঙ্গের দায়ে অভিযুক্ত ঘোষণা করা হয়।

বুধবার উইকিলিকস প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে দণ্ড ঘোষণা করা হয়। তবে তার আগে অ্যাসাঞ্জের লেখা একটি চিঠি আদালতে পড়ে শোনানো হয়। তাতে জামিনের শর্ত ভঙ্গের কারণ হিসেবে তিনি বলেন, কঠিন পরিস্থিতির সাথে লড়াই করতে হচ্ছিল তাকে। যারা এতে অসম্মানিত বোধ করেছেন তাদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করেন তিনি। অ্যাসাঞ্জ বলেন, ওই সময়ে যা সবচেয়ে ভালো বলে মনে করেছি আমি তাই করেছি অথবা কেবলমাত্র তাই করতে পারতাম আমি।

অ্যাসাঞ্জের দণ্ড ঘোষণার সময়ে বিচারব দেবোরাহ টেইলর অ্যাসাঞ্জকে বলেন, দূতাবাসে পালিয়ে থেকে আপনি যুক্তরাজ্যে থেকেও ইচ্ছাকৃতভাবে নিজেকে নাগালের বাইরে রেখেছেন।