।। নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী ।।

রাজশাহী নগরে অবৈধ উচ্ছেদ অভিযানে ভবন নির্মাণ শ্রমিকদের ধরপাকড়কে কেন্দ্র করে সড়ক আগলে আন্দোলন করেছে স্থানীয় নির্মাণ শ্রমিকরা।

শনিবার সন্ধ্যায় নগর ভবনের সামনে প্রায় এক ঘণ্টা সড়ক অবরোধ করে শ্রমিকরা এ আন্দোলন করে। পরে স্থানীয় প্রশাসনের আশ্বাসে তারা সড়ক অবরোধ তুলে নেয়।

সূত্রমতে, রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের ভ্রাম্যমাণ আদালত শনিবার দিনব্যাপী নগরের কাদিরগঞ্জ হয়ে বন্দগেট দিয়ে বাইপাদ সিটি হাট পর্যন্ত উচ্ছেদ অভিযান পরিচালিত করেন। এসময় নির্মাণাধীন বিভিন্ন ভবনের সামনের ফুটপাতে নির্মাণ সামগ্রী রাখার অভিযোগে বাড়িগুলোতে কর্মরত নির্মাণ শ্রমিকদের আটক করা হয়।

পরে খবর পেয়ে বিকেল চারটায় নির্মাণ শ্রমিক সংগঠনগুলোর নেতাকর্মীরা নগর ভবনের প্রবেশদ্বারের কাছে এসে মেয়রকে বিষয়টি জানাতে একত্রিত হয়। তবে মেয়র না থাকায় তারা নগর ভবনের সামনের সড়ক আগলে বিক্ষোভ শুরু করেন। এসময় সাড়ে চারটা থেকে বিকাল সাড়ে পাঁচটা পর্যন্ত সড়কটিতে যান চলাচল বন্ধ থাকে। খবর পেয়ে বোয়ালিয়া থানা পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। পরে বোয়ালিয়া থানার ওসি আমানুল্লাহ আমান উপস্থিত ক্ষুব্ধ শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলেন। পরে শ্রমিকদের প্রশাসনের পক্ষ থেকে আশ্বস্ত করা হলে তারা সড়ক ছেড়ে সরে দাঁড়ায়।

বিল্ডিং পেইন্টার শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক রনি হোসেন বলেন, রাজশাহীতে ভ্রাম্যমাণ আদালত কর্তৃক উচ্ছেদ অভিযান চলছে। আমরা এ অভিযানের পক্ষে। তবে অভিযানে যে বাড়ির মালিক অন্যায় করছে তাদেরকে আটক না করে বাড়িগুলোতে কর্মরত নিরীহ শ্রমিকদের আটক করা হচ্ছে। আমাদের আপত্তি ওখানেই।

তিনি অভিযোগ করে আরো বলেন, শ্রমিকদের আটকে তো জরিমানা আদায় করা যাবে না। শ্রমিকরা কি জরিমানা দিবে? যার বাড়ি তাদেরকে আটক করলেই বিষয়টির সমাধন করা সম্ভব। এবিষয়ে আমরা মেয়রের সাথে কথা বলতে শনিবার বিকেলে নগর ভবনে গেলে কেউ কথা না বলায় আমরা বাধ্য হয়ে সড়ক অবরোধ করি।

এদিকে বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে রাসিকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সমর কুমার পালের সঙ্গে কথা বলতে তার ফোনে কল করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।