[interaction id=”5cb328946fa6695166a36e61″]

চাকা

একটা আদত শহর ধীরে ধীরে তোমার হয়ে যাচ্ছে

যেখানের পান জল কিছু আলাদা ঠেকছে না

পকেটে পুরে নিচ্ছ বাধ্যতা

ভেজাল এটি কেটে মুছে

সাজিয়ে রাখছো

পাটিসুদ্ধু দাঁত-জিভ-আলজিভ

কীভাবে শুকিয়ে গেছে

শেকলের যৌন ঘাম

পরিমিত শব্দটি ফাঁক পূরণে অক্ষম জেনেও

গড়িয়ে দিচ্ছ চাকা

চাকা চাকা

ছোঁয়া থেকে ছোঁয়াচে হয়ে উঠছে অ্যান্ড্রয়েড

অনামিকাবা মধ্যমা

একই স্ট্র থেকে টেনে নিচ্ছে সঞ্জীবনী

ঠোঁটদানিতে আলো লেগে আছে

একটি অ-স্যুরিয়ালিস্টিক হত্যা

হুইস্কার জল ওর ভিজিয়ে দিচ্ছে তলপেট

ফুটফুটে কৈশোর থেকে অসুখ চেঁছে

সযত্নে মাঞ্জা দেওয়া তাড়িতিক অনুনাদ

তোড়ফোড় গিটারের নাভি

ফুলকির মত ছড়িয়ে পড়ছে

মেলোডি আধান

আরও গাইছে

শরীরের সমস্ত উত্তাপ ঠোঁটে চেপে

নগ্ন নভোরনী চে ক্যাসুয়াল

অজস্র আগ্নেয়কলির নুয়ে পড়া শরীর

ছাই ঢাকা কড়ক অসুখ

জাদুবাস্তবের মারণ অ্যাডিকশান্‌

তবুও গাইবে

ভোকাল কর্ডে নেশা

তবুও ফোটাবেই বিষ অদম্য কৈশোরের

ওকে ভালোবেসেছিলো সব্বাই

শুধু ও ছাড়া—

রেফারেন্স :প্রত্যয়িত সুইসাইড নোট

জীবনটা ওর বাঁহাতের খেল।

আলাপ

যে বিছনায় তোমার ঘুম পড়ে আছে

পায়ার স্ট্রিং যে পুঁতে রেখেছো হারেমখচিত প্লেকট্রাম

বিন-সাইরেনে দুলে ওঠা ইন্ডোর ধাম

ধুমায়িত মাধ্যাকর্ষণ বুক গজিয়ে এল

গোটা দশ বুনো চাকা

ঠিক ঝিমুনির মত সুপারসনিক

প্রোটিনপিয়াসী পাপড়ি খোলার আওয়াজ

অবহেলায় বিলিয়ে যাও মধ্যরাতের স্কার্ট

এক ফালি ঊরু! কুকি…

আমরা সবাই ভুল দেখছি

ঘুমের আগেও ঘুমের পরেও

ভুল দেখছি

তোমার মৃত্যুকে ঘেরাও করে

শাশ্বত হয়ে উঠছে

দিগন্ত ডিংগির একটা চোখ—

লেডসালফাইডে গড়িয়ে পড়ছে রবীন্দ্রনাথ!     

ক্যাজুয়াল বিউটি

এই চালাকির বহুমাত্রিকতা ঝাঁপ দিচ্ছে

১৮০ ডিগ্রি ঘাড় ঘুরিয়ে—

গল্প শেষ করতে করতেও সে পথ পাচ্ছে না পালাবার

ছিদ্রান্বেষী জনতার চোখ

এসকেলেটার ধরে আছড়ে পড়ছে

সপ্তমফ্লোর-এ

এখানে কোনো ফায়ার এক্সিট নেই

নেই কোনো ধাতব অনুসন্ধিতসু

সমস্ত প্রাথমিক স্ক্রিনিং পেরিয়ে

একটা ছাদের দরোজা দিয়ে রোদ ঢুকছে