।। রাজু আহমেদ, রাজশাহী ।।

ঢাকা-রাজশাহী রুটে বিরতিহীন ট্রেন চালু করা দীর্ঘদিনের দাবি ছিলো এ অঞ্চলের মানুষের। সকলের চাহিদাকে গুরুত্ব দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর অনুমতি সাপেক্ষে শিগগিরই এ ট্রেন চালু হচ্ছে বলে নিশ্চিত করেছেন রেলওয়ে পশ্চিমাঞ্চল কর্তৃপক্ষ। এজন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন ও রাজশাহী-২ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা।

একাদশ জাতীয় সংসদ ও সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত ওই দুই প্রার্থীরই নির্বাচনি ইশতেহারে অন্যান্য আশ্বাসের সঙ্গে রাজশাহী-ঢাকা রুটে বিরতিহীন ট্রেন চালু করার বিষয়টি গুরুত্ব পেয়েছিল।

বাংলাদেশ রেলওয়ে পশ্চিমের দেয়া তথ্য মতে, টেনটির সম্ভাব্য নামের তালিকাসহ আসনের ভাড়া ও বগির সংখ্যা উল্লেখ করে রেল মন্ত্রণালয়ে পাঠান হয়েছিল। মন্ত্রণালয় সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর অনুমতি নিয়ে রাজশাহী-ঢাকা রুটে বিরতিহীন এই ট্রেন চালুর বিষয়ে নীতিগত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

রেলের একটি সূত্র বিরতিহীন নতুন ট্রেনটির যাত্রার সময় ও ভাড়ার সম্ভাব্যতা উল্লেখ করে জানান, বর্তমানে রাজশাহী-ঢাকা রুটে রেলের যে তিনটি ট্রেন চালু রয়েছে তার চাইতে ১০ শতাংশ বেশি মূল্যে কিনতে হতে পারে নতুন বিরতিহীন ট্রেনের টিকেট।

ট্রেনটি রাজশাহী থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাবে সকাল ৭টায়। ঐদিনই ঢাকা থেকে রাজশাহীর উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসবে দুপুর দেড়টায়। সপ্তায় একদিন বন্ধ থাকবে ট্রেনটি। আনুষ্ঠানিকভাবে ট্রেনটির এখনো কোনো নাম ঠিক হয়নি।

তবে ট্রেনটির জন্য ৫টি নাম প্রস্তাব করা হয়েছে। এগুলো থেকেই একটি চূড়ান্ত করার সম্ভাবনা রয়েছে। নামগুলো হলো-

  • হিমসাগর এক্সপ্রেস
  • রূপসী বাংলা এক্সপ্রেস
  • নর্দার্ন এক্সপ্রেস
  • বনলতা এক্সপ্রেস
  • গ্রিনসিটি এক্সপ্রেস

রাজশাহী-ঢাকা বিরতিহীন ট্রেনকে আপনি কোন নামে দেখতে চান, জানাতে এই প্রতিবেদনের শেষভাগে জরীপে অংশ নিন।

রাজশাহী থেকে ঢাকায় পৌছাতে বা ঢাকা থেকে রাজশাহীতে পৌছাতে ট্রেনটির সময় লাগতে পারে পাঁচঘণ্টা। কারণ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে সিগন্যাল পাসিং ও আনুসঙ্গিক ডিলেকে। তবে আশা করা হচ্ছে ট্রেনটি যাত্রা শুরু পর অপর প্রান্তে পৌছাতে আরো কম সময় লাগবে। রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়রের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে বিরতিহীন ট্রেনটি আগামী ১৪ এপ্রিল অর্থাৎ পহেলা বৈশাখ থেকে চালু হচ্ছে।

তবে রেল কর্তৃপক্ষ নতুন ট্রেনটি চালু হচ্ছে নিশ্চিত করতে পারলেও, ঠিক কতো তারিখ থেকে চালু হচ্ছে তা নিয়ে সন্দিহান রয়েছে। তিনটি রুটে নতুন তিনটি ট্রেন চালুর জন্য ৫০টি বগি বা কোচ কেনা হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে। এরই মধ্যে ১৫টির অধিক বগি এসে পৌছেছে দেশে।

সূত্রমতে, রাজশাহী-ঢাকা রুটে নতুন বিরতিহনি ট্রেনে এই বগিগুলোই যুক্ত হয়ে চালু করা হবে ট্রেনটি। যেখানে মোট বগিসংখ্যা হতে পারে ১২টি। যার আসনসংখ্যা হবে ৯৩২। তবে রাজশাহী-ঢাকা বিরতিহীন ট্রেন উদ্বোধনের নির্ধারিত দিন এখনো রেল কর্তৃপক্ষের হাতে এসে পৌঁছায়নি বলে জানা গেছে।

এদিকে টেনটি চালুর সংবাদ প্রকাশের পর থেকে স্থানীয়দের মধ্যে বেড়েছে কৌতূহল। তারা জানিয়েছেন, এই ট্রেনটি চালু হলে রাজশাহীতে পর্যটনসহ নতুন সম্ভাবনার দ্বার উম্মোচিত হবে।

[poll id=”13″]